যত দ্রুত সম্ভব ফেরাও রোহিত শর্মা, শিখর ধওয়ন এবং বিরাট কোহালিকে। তবেই ভারতীয় দলকে চাপে রাখা সম্ভব।

বক্তা অস্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। টেস্ট সিরিজে ধরাশায়ী হওয়ার পর আজ, শনিবার সিডনিতে নতুন চ্যালেঞ্জের মুখে অস্ট্রেলিয়া।ওয়ান ডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামার আগে ফিঞ্চ-সহ গোটা অস্ট্রেলিয়া শিবিরকে ভাবাচ্ছে বিপজ্জনক এক পরিসংখ্যান। যেখানে শেষ বারো মাসে একদিনের ক্রিকেটে অধিনায়ক কোহালির রানের গড় ১৩৩। ধওয়নের ৭৫ এবং রোহিতের ৫০। ফিঞ্চ বলছেন, ‘‘ভারতের ওই তিন ব্যাটসম্যানই কিন্তু ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। খুব দ্রুত রান যেমন তুলতে পারে, তেমনই ওদের আউট করা খুব কঠিন। ফলে আমাদের লক্ষ্যই থাকবে দ্রুত ওদের ফিরিয়ে দেওয়া।’’

তবে সেখানেই ফিঞ্চের দুশ্চিন্তা শেষ হয়ে যাচ্ছে না। মাঝের সারিতে অভিজ্ঞ মহেন্দ্র সিংহ ধোনি, দীনেশ কার্তিক এবং কেদার যাদব রয়েছেন। ফিঞ্চ বলেছেন, ‘‘এরা যে কোনও সময়েই ভাল খেলতে পারদর্শী। এটা ঠিক যে, ভারতীয় দলের টপ অর্ডারটা দুর্দান্ত। কিন্তু এদের মধ্যে থেকেও কেউ দারুণ খেলে দিতে পারে।’’

টেস্ট সিরিজে অস্ট্রেলিয়া শিবিরে কম্পন ধরিয়ে দেওয়া যশপ্রীত বুমরা নেই একদিনের সিরিজে। কিন্তু ফিঞ্চ জানাচ্ছেন, বিশ্রামে থেকে তরতাজা থাকা ভুবনেশ্বর কুমার তাঁদের পথের কাঁটা হতে পারেন। ‘‘একদিনের ক্রিকেটে ভারতীয় দলের বড় অস্ত্র বুমরা। কিন্তু ভুবনেশ্বরও সব ধরনের ক্রিকেটে সাফল্য পেয়েছে,’’ বলেছেন ফিঞ্চ। সঙ্গে মাথাব্যথার কারণ হয়ে থাকছেন দুই স্পিনার কুলদীপ যাদব ও যুজবেন্দ্র চহাল। অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক মেনে নিচ্ছেন, ‘‘সাম্প্রতিক সময়ে ওরা যে দুর্দান্ত বোলিং করেছে, তা অভাবনীয়। পাশাপাশি জাডেজা, কেদারের মতো বোলাররাও রয়েছে। এই ভারতীয় দলে এমন কোনও দুর্বল জায়গা নেই যেখানে পাল্টা আঘাত করা যেতে পারে।’’ যোগ করেছেন, ‘‘এই ভারতীয় দলে বোলিং বিভাগে এত বৈচিত্র রয়েছে যে, ওরা যে কোনও পরিস্থিতিতে সমান ভাবে লড়াই করতে পারে।’’