মানসিক দৃঢ়তার যে অভাব ঘটছে, তা বুঝতেই পারছেন। সেই কারণেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়াই ভাল বলে মনে করেন ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক অ্যালেস্টেয়ার কুক। শুক্রবার থেকে জীবনের শেষ টেস্ট খেলতে নামছেন তিনি। তার আগে বুধবার সাংবাদিকদের তিনি বললেন, ‘‘মানসিক ভাবে বরাবর শক্তিশালী ছিলাম আমি। মনের জোরে অনেক কিছুই করেছি আমি। কিন্তু মনে হচ্ছে সেই জোরটা ক্রমশ চলে যাচ্ছে। আগে যেগুলো সহজ মনে হত, সেগুলো এখন আর মনে হচ্ছে না। এটাই আমার কাছে বড় ব্যাপার।’’ 

সাউদাম্পটনে জয়ের পরে কুক জানিয়ে দেন, আর দেশের হয়ে খেলবেন না তিনি। এ দিন তিনি বলেন, ওখানে দল না জিতলে হয়তো সিদ্ধান্তটাও তখন জানাতেন না। বলেন, ‘‘নিজের সম্পর্কে ভাল ভাল কথা শুনতে কার না ভাল লাগে? কিন্তু অনেকে আলোচনা শুরু করে দিয়েছিল, আমি আদৌ বেঁচে আছি কি না। আমার এক বন্ধু তো আমাকে ফোন করে সেটা জিজ্ঞেসই করে ফেলল। এটা মোটেই ভাল লাগে না। আশা করি এই সপ্তাহে কিছু রান পেয়ে বিদায় নেব।’’

সাউদাম্পটনে টেস্ট শুরুর আগেই এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন বলে জানান কুক। বলেন, ‘‘গত ছ’মাস ধরেই ভাবনা-চিন্তা করছিলাম। টেস্ট শুরুর আগেই ক্যাপ্টেনকে জানিয়ে দিই সিদ্ধান্তটা। ম্যাচের সময় বলি কোচকে। সিরিজ ২-২ হলে অবশ্য এখনই সিদ্ধান্ত জানাতাম না। সাংবাদিক বৈঠকে নাগাড়ে মিথ্যে কথা বলে আসাটাও কঠিন। আমি আসলে এত চেপে রাখতে পারি না।’’ ৫৯টি টেস্ট ও ৯২টি ওয়ান ডে-তে ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন কুক।