• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আইজলের বিরুদ্ধে চুলোভার খেলা নিয়ে আশায় কোচ

East Bengal
লক্ষ্য: শারীরিক শক্তি বাড়াতে বিশেষ প্রস্তুতি ইস্টবেঙ্গলে। কোমরে স্ট্র্যাপ বেঁধে এনরিকে এসকুয়েদার সঙ্গে অনুশীলনে মগ্ন জবি জাস্টিন। শুক্রবার সকালে যুবভারতীতে। ছবি সুদীপ্ত ভৌমিক

লালরাম চুলোভাকে নিয়ে আশা ও আশঙ্কা লাল-হলুদ শিবিরে। চব্বিশ ঘণ্টা আগে চোটের জন্য অনুশীলনই করতে পারেননি ইস্টবেঙ্গল রক্ষণের অন্যতম ভরসা। ডান হাঁটুতে বরফ বেঁধে বসেছিলেন। ফলে সোমবার যুবভারতীতে আইজল এফসি-র বিরুদ্ধে চুলোভার খেলা নিয়ে অনিশ্চিয়তা তৈরি হয়েছিল। শুক্রবার সকাল থেকে বদলে গিয়েছে পরিস্থিতি। আইজলের বিরুদ্ধে খেলার সম্ভাবনা ক্রমশ উজ্জ্বল হচ্ছে লাল-হলুদ শিবিরের ডিফেন্ডারের।

যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন সংলগ্ন মাঠে এ দিন সকালে ফিজিক্যাল ট্রেনার কার্লোস নোদারের কাছে পুরোদমেই অনুশীলন করেন চুলোভা। যদিও ম্যাচ প্র্যাক্টিস করেননি তিনি। লাল-হলুদ অন্দরমহলের খবর, চুলোভার চোট খুব একটা গুরুতর নয়। ফলে আইজলের বিরুদ্ধে তাঁর খেলার সম্ভাবনা যথেষ্ট। দু’বছর আগে আইজলকে আই লিগে চ্যাম্পিয়ন করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন চুলোভা, লালডানমাউইয়া রালতে, ব্রেন্ডন ভানলালরেমডিকারা। সোমবার এই তিন তারকাকে দিয়েই আইজল কাঁটা উপড়ে ফেলতে চান ইস্টবেঙ্গল কোচ।

প্রশ্ন উঠছে তা হলে কেন শুক্রবার প্র্যাক্টিস ম্যাচে চুলোভাকে খেলালেন না কোচ আলেসান্দ্রো মেনেন্দেস গার্সিয়া? জানা গিয়েছে, কার্ড সমস্যায় জনি আকোস্তা ইতিমধ্যেই ছিটকে গিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে রক্ষণ শক্তিশালী করতে চুলোভাকে প্রয়োজন আইজল ম্যাচে। কিন্তু অনুশীলনে ফের যদি চোট পান তিনি, তা হলে সমস্যা বাড়বে। এই কারণেই শুক্রবার চুলোভাকে খেলানোর ঝুঁকি নেননি ইস্টবেঙ্গলের স্প্যানিশ কোচ। দলের এক সদস্যের কথায়, ‘‘আইজলের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে দু’দিন সময় পাওয়া যাবে। তার মধ্যেই সব কিছু স্পষ্ট হয়ে যাবে। আমরা আশাবাদী আইজল ম্যাচে ওর খেলা নিয়ে।’’ এর পরেই তাঁর দাবি, ‘‘চুলোভা শেষ পর্যন্ত খেলতে না পারলেও চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই। কারণ, ওর অভাব পূরণ করার মতো ফুটবলার আমাদের দলে রয়েছে।’’ 

চুলোভার বিকল্প হিসেবে মেনেন্দেসের ভাবনায় যে সামাদ আলি মল্লিক, তা ম্যাচ প্র্যাক্টিসের সময়ই বোঝা গিয়েছে। আকোস্তার জায়গায় তিনি খেলাতে পারেন জাতীয় দলের ডিফেন্ডার সালামরঞ্জন সিংহকে।

১৭ ম্যাচে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে  আই লিগ টেবলের শীর্ষে চেন্নাই সিটি এফসি। এক ম্যাচ কম খেলে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ইস্টবেঙ্গল। খেতাবের আর এক দাবিদার রিয়াল কাশ্মীরেরও ১৭ ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট। কিন্তু গোল পার্থক্যে পিছিয়ে থাকায় তিন নম্বরে তারা। ইস্টবেঙ্গলের পরের ম্যাচের প্রতিপক্ষ আইজল রয়েছে আট নম্বরে। তা সত্ত্বেও লাল-হলুদ শিবিরে উদ্বেগ কমছে না। প্রথম পর্বের ম্যাচে আইজল থেকে ২-৩ হেরে ফিরেছিলেন এনরিকে এসকুয়েদা-রা। এ বারের লড়াই যুবভারতীতে হলেও ক্রোমাদের গতিময় ফুটবলই অস্বস্তির কারণ।

ড্র লাজংয়ের: শুক্রবার আই লিগে ঘরের মাঠে লাজং এফসি ১-১ গোলে ড্র করেছে গোকুলম এফসি-র সঙ্গে। ৪৩ মিনিটে মার্কাস জোশেফের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল গোকুলম। ৬৫ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ম্যাচে সমতা ফেরান লাজংয়ের লালমুয়ানপুলা। ১৮ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে লাজং তালিকার শেষে রইল। ১৭ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট গোকুলমের। তারা রয়েছে ন’নম্বরে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন