• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আইপিএল-জুয়ায় নজরে সলমনের ভাই

Arbaaz Khan
আরবাজ খান

সেই ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। সেই ক্রিকেট-জুয়া। সেই সেলেব্রিটি-যোগের জল্পনা। পাঁচ বছর আগেকার কেচ্ছা ফিরে এল আবার। আইপিএল নিয়ে জুয়ার অভিযোগে পুলিশ ডেকে পাঠাল সলমন খানের ভাই আরবাজকে। কাল বয়ান নেওয়া হবে এই অভিনেতা-পরিচালকের।

সোনু যোগেন্দ্র জালান ওরফে সোনু মালাড নামে কুখ্যাত এক ক্রিকেট জুয়াড়িকে গত ১৫ মে গ্রেফতার করে ঠাণে পুলিশ। তোলাবাজি-বিরোধী সেলের সিনিয়র ইনস্পেক্টর প্রদীপ শর্মা জানান, সোনুকে জেরার পরে তার সঙ্গে আরবাজের যোগসূত্র মিলেছে। তার ভিত্তিতেই অভিযোগ উঠেছে যে, আইপিএল-জুয়ায় সোনুর কাছে ২ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা হেরেছিলেন আরবাজ। টাকা মেটাতে দেরি করায় সোনু হুমকি দেয় আরবাজকে। চেষ্টা করেও আরবাজের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেনি সংবাদমাধ্যম।

ঠাণের ডোম্বিভলী থেকে বেটিং-চক্র চালায় সোনু। দাউদ ইব্রাহিমের দলের সঙ্গে তার যোগ রয়েছে বলে মনে করা হয়। ২০১২ সালে আইপিএল-জুয়ার অভিযোগে সোনুকে ধরেছিল মুম্বই পুলিশ। ২০১৩-র আইপিএলে গড়াপেটার তদন্তে গ্রেফতার হন ক্রিকেটার শ্রীসন্ত থেকে অভিনেতা বিন্দু দারা সিংহ। অভিযোগ, সে বারও জুয়ার অন্যতম পাণ্ডা ছিল সোনু।

নয়া চাপে বিসিসিআই-ও। ইডি-র অভিযোগ, ২০০৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় আইপিএলের সময়ে ভারতীয় নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলির নজর এড়াতে ২৪৩ কোটি টাকা সরাসরি দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেট বোর্ডের অ্যাকাউন্টে পাঠিয়েছিল ভারতীয় বোর্ড। কোনও আলাদা অ্যাকাউন্ট খোলা হয়নি। বিদেশি মুদ্রা আইন (ফেমা)-র আওতায় বিসিসিআইয়ের পাশাপাশি এন শ্রীনিবাসন, ললিত মোদী-সহ বেশ কয়েক জন প্রাক্তন কর্তাকে মোট ১২১ কোটি ৫৬ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে ইডি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন