টেস্ট ক্রিকেটে নতুন এক অধ্যায় শুরু হতে যাচ্ছে আসন্ন অ্যাশেজ সিরিজে। যেখানে ক্রিকেটারদের দেখা যাবে নিজেদের নাম এবং নম্বর লেখা জার্সি পরে মাঠে নামতে। 

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অনেক দিন ধরেই জার্সিতে নাম এবং নম্বর লেখার চল আছে। কিন্তু টেস্ট ক্রিকেট এত দিন ধরে এই রীতিকে দূরে সরিয়ে রেখেছিল। এ বার টেস্টের জার্সিতেও বদল আসতে চলেছে। অ্যাশেজ যেখানে রাস্তা দেখাবে। আইসিসি এবং ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড এই নাম লেখা নতুন জার্সিতে বেশ কয়েক জন ক্রিকেটারের ছবি টুইট করেছে। তার মধ্যে একটিতে দেখা যাচ্ছে জো রুট ৬৬, স্টুয়ার্ট ব্রড ৮ নম্বর জার্সি পরে রয়েছেন। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন উঠেছে, জার্সিতে কেন এগারোর বেশি নম্বর রয়েছে? কারও কারও আবার মত, এই ভাবে টেস্ট জার্সিতে নাম লেখার পিছনে বাণিজ্যিক স্বার্থটাই বেশি রয়েছে। কারণ জার্সিতে নাম লেখা থাকলে তার মূল্য বেড়ে যাবে।             

আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে এই টেস্টে পরীক্ষা জেসন রয়েরও। বিশ্বকাপে দুরন্ত ফর্মে থাকা রয় এখন স্বপ্ন দেখছেন অ্যাশেজ খেলার। আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে এই টেস্ট অবশ্য চার দিনের। টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে আইসিসির নানা পরীক্ষার মধ্যে এটি একটি। যেখানে সময় কমিয়ে খেলাকে আরও আকর্ষণীয় করার চেষ্টা করা হয়েছে। আইসিসি এই প্রচেষ্টায় পাশে পেয়েছে ইংল্যান্ড এবং দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডকে। বছরের শেষ দিকে দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম জ়িম্বাবোয়ের মধ্যে একটি চার দিনের টেস্ট হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু জ়িম্বাবোয়েকে আইসিসি সাসপেন্ড করায় সেই পরিকল্পনা আপাতত জলে। লর্ডসের এই টেস্ট ম্যাচ অবশ্য ইংল্যান্ডের কাছে অ্যাশেজ প্রস্তুতির একটা অঙ্গ। 

স্টোকসের ভোট কেনকে: নিউজ়িল্যান্ডের বর্ষসেরা ব্যক্তিত্বের দৌড় থেকে সরে দাঁড়ালেন বেন স্টোকস। ইংল্যান্ড অলরাউন্ডার জানিয়ে দিলেন, এই সম্মানের যোগ্যতম দাবিদার কেন উইলিয়ামসন। প্রসঙ্গত গত সপ্তাহে নিউজ়িল্যান্ড ক্রীড়া এব‌ং সংস্কৃতি দফতরের তরফে জানানো হয়েছিল, বর্ষসেরা ব্যক্তিত্ব হিসেবে বেন স্টোকসের নামও মনোনীত হয়েছে। যাঁর জন্ম ক্রাইস্টচার্চে। কিন্তু ১২ বছর বয়সে তিনি পরিবারের সঙ্গে ইংল্যান্ডে চলে যান। মঙ্গলবার তিনি টুইট করেছেন, ‘‘নিউজ়িল্যান্ডের বর্ষসেরার দৌড়ে আমার নাম যুক্ত হওয়াতে আনন্দিত। নিজের দেশ নিউজ়িল্যান্ড এবং মাউরি সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি হিসেবে আমি গর্বিত। কিন্তু তার জন্য এই সম্মান প্রাপ্য বলে আমি মনে করি না।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘গোটা দেশের মানুষের উচিত উইলিয়ামসনের পাশে থাকা। তাঁকে কিংবদন্তির সম্মান জানানো উচিত। বিশ্বকাপে কেন নিজের দেশকে নতুন এক দিশা দেখিয়েছে।’’