দাঁতে অসম্ভব ব্যথা। তা-ও দাঁতে দাঁত চেপেই অসাধ্যসাধন করলেন জলপাইগুড়ির মেয়ে স্বপ্না বর্মন। হেপ্টাথলনে এশীয় সোনা জিতে তা ভারতের ঝুলিতে ঢেলে দিলেন।

বুধবার জাকার্তার এশিয়ান গেমসের পোডিয়ামে ওঠার আগে স্বপ্না ছুঁয়ে ফেললেন আরও এক মাইলফলক। ৬ হাজার পয়েন্টের বাধাও পেরোলেন। সোনা জয়ের জন্য তাঁর সামনে ছিল চিনের বাধাও। সেই বাধাও অতিক্রম করলেন স্বপ্না। চিনের ওয়াং কুইংলিংকে পিছনে ফেলে মোট ৬০২৬ পয়েন্ট নিয়ে সোনার পদক গলায় তুলে নিলেন তিনি।

অ্যাথলেটিক্সের সবচেয়ে কঠিন ইভেন্ট বলা হয় হেপ্টাথলনকে। ট্র্যাক আর ফিল্ড মিলিয়ে মোট সাতটি ইভেন্টে পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হয় প্রতিযোগীকে। ওই সাতটিতেই নিজেকে উজাড় করে দিলেন জলপাইগুড়ির পরিবারের মেয়ে। মঙ্গলবার জ্যাভেলিন থ্রো-এর পর ছ’টি ইভেন্ট শেষ হয়। তাতে তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ওয়াংয়ের মোট পয়েন্ট ছিল ৫১৫৫। অন্য দিকে, স্বপ্নার কাছে ছিল ৫২১৮ পয়েন্ট। অর্থাত্ ৬৩ পয়েন্টের ব্যবধান। ফলে একেবারে ঘাড়ের কাছেই নিঃশ্বাস ফেলছিলেন ওয়াং।

আরও পড়ুন: ট্রেনিংয়ের নয়া কৌশলেই সফল ভুবিরা

আরও পড়ুন: ডাম্পার চালকের রুপোজয়ী মেয়ের এ বার নতুন শপথ

সোনা জয়ের আনন্দ ট্র্যাকেই ছড়িয়ে দিলেন স্বপ্না। ছবি: রয়টার্স।

হেপ্টাথলনের প্রথম দিককার ইভেন্টগুলোতে অনেকটাই এগিয়ে ছিলেন ওয়াং। তবে গত কাল জ্যাভেলিন থ্রো-এর তাঁর আত্মবিশ্বাস যেন এক লাফে অনেকটাই বেড়ে গিয়েছিল। এ দিন বাকি ছিল ৮০০ মিটার দৌড়। তাতেই বাজিমাত করেন স্বপ্না। মেডিক্যাল ব্যান্ডেজ পরে লড়াই চালিয়ে যান ওয়াংয়ের সঙ্গে। শেষমেশ সোনার হাসিও হাসলেন স্বপ্নাই।

 

(অলিম্পিক্স, এশিয়ান গেমস, কমনওয়েলথ গেমস হোক কিংবা ফুটবল বিশ্বকাপ, ক্রিকেট বিশ্বকাপ - বিশ্ব ক্রীড়ার মেগা ইভেন্টের সব খবর আমাদের খেলা বিভাগে।)