বল বিকৃতি কাণ্ডের জেরে ক্রিকেট থেকে সরে যেতে হয়েছিল তাঁকে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে শেষ টেস্ট খেলেছিলেন ১৬ মাস আগে। বিশ্বকাপের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেছেন স্টিভ স্মিথ। আর টেস্ট ক্রিকেটে তাঁর প্রত্যাবর্তন ঘটবে অ্যাশেজ সিরিজে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্টে। তার আগে নাকি পাগলের মতো নেটে পরিশ্রম করে চলেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক।

সাউদাম্পটনে শিবির চলছে অস্ট্রেলিয়ার। বার্মিংহামে পয়লা অগস্ট থেকে শুরু হচ্ছে অ্যাশেজের প্রথম টেস্ট। তার আগে সোমবার সাংবাদিকদের অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক টিম পেন বলেন, ‘‘এমনি এমনি কেউ বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হয় না বা কারও টেস্টে ব্যাটিং গড় ৬০ হয় না। একটা লক্ষ্য রেখেই স্মিথ নিজেকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে।’’ 

পেনই জানিয়েছেন, নেটে তাঁদের ব্যাটিং কোচ গ্রেম হিককে প্রচুর খাটাচ্ছেন স্মিথ। অধিনায়ক বলেছেন, ‘‘আমরা তো নিজেদের মধ্যে হাসাহাসিও করছি স্মিথকে দেখে। কিছুই বদলায়নি। বোধ হয় লাখ খানেক বল খেলেছে নেটে। আর কোচের হাত প্রায় খুলে গিয়েছে স্মিথকে ব্যাটিং প্র্যাক্টিস দিতে দিতে। আর এ তো সবে সফরের প্রথম কয়েকটা দিন গেল।’’ নির্বাসনের শাস্তি উঠে যাওয়ার পরে স্মিথের সঙ্গেই দলে ফিরেছেন ডেভিড ওয়ার্নার, ক্যামেরন ব্যানক্রফ্ট। এই ত্রয়ীকে নিয়ে পেন বলেছেন, ‘‘তিন জনই দলের সঙ্গে দারুণ ভাবে মিশে গিয়েছে। ট্রেনিংয়ে ওরাই বাকিদের জন্য লক্ষ্য ঠিক করে দিচ্ছে।’’

অ্যাশেজের আগে চূড়ান্ত দল ঠিক করার জন্য ‘অস্ট্রেলিয়া বনাম অস্ট্রেলিয়া’ ম্যাচের দিকে তাকিয়ে আছে দলের কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার। যেখানে ২৫জনের ক্রিকেটারকে দু’দলে ভাগ করে খেলানো হবে। কোচ বলেছেন, ‘‘দলের কয়েকটা জায়গা এখনও ফাঁকা আছে। বিশেষ করে বোলিং বিভাগের। সে সব নিয়ে আমাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’’

তবে অস্ট্রেলিয়াকে অস্বস্তিতে রাখছে উসমান খোয়াজার চোট। বিশ্বকাপে খেলতে গিয়ে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়েছিলেন খোয়াজা। এখনও পুরো সুস্থ হতে পারেননি এই ব্যাটসম্যান। অ্যাশেজের প্রথম টেস্টে খোয়াজার খেলার সম্ভাবনা যে বেশ কম, তা পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে ল্যাঙ্গারের কথায়। অস্ট্রেলিয়ার কোচ বলেছেন, ‘‘অনেকটাই সুস্থ হয়ে গিয়েছে খোয়াজা। কিন্তু ওর চোটটা যে ধরনের, তাতে মাঠে নামার আগে পুরোপুরি নিশ্চিত হতে হবে। আমরা চাই না, তাড়াহুড়ো করে প্রথম টেস্টে খেলতে নেমে খোয়াজার চোট বাড়ুক। সে রকম হলে গোটা সিরিজে ভুগতে হবে।’’