আসন্ন বিশ্বকাপে ফেভারিটদের তালিকায় একেবারে উপরেই থাকছে ইংল্যান্ডের নাম। অনেক ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ আবার মনে করছেন, ঘরের মাঠে ফেভারিট হওয়ার চাপটা সমস্যায় ফেলতে পারে ইংল্যান্ডকে। এই দলে অবশ্য ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডার বেন স্টোকস পড়েন না। তিনি সাফ জানাচ্ছেন, যোগ্য দল হিসেবেই ইংল্যান্ডের গায়ে এই ফেভারিট তকমা লেগেছে।

পাকিস্তানকে ওয়ান ডে সিরিজে হারিয়ে উঠে স্টোকস বলেছেন, ‘‘আমাদের যোগ্য দল হিসেবেই সবাই ফেভারিট বলছে। গত তিন-চার বছর ধরে আমরা যে ক্রিকেটটা খেলছি, তারই স্বীকৃতি এখন পাচ্ছি।’’ স্টোকস আরও বলেন, ‘‘র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর দল হলে তারা তো ফেভারিট হবেই। ভারত বা অস্ট্রেলিয়া যদি এক নম্বর দল হত, তা হলে ওরাও ফেভারিট হিসেবে শুরু করত।’’

বিশ্বকাপ শুরুর আগে আত্মবিশ্বাসী হলেও সতর্ক থাকছেন স্টোকস। ইংল্যান্ড অলরাউন্ডার মনে করিয়ে দিচ্ছেন দু’বছর আগের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিকে। তিনি বলেন, ‘‘চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও আমরা ফেভারিট ছিলাম। খুব ভাল ক্রিকেট খেলছিলাম। কিন্তু পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ওই ম্যাচে এমন একটা পিচে খেলা হল, যেখানে আমাদের চেয়ে ওরা বেশি সুবিধে পেয়ে গেল। তবে সেই ঘটনার থেকে আমরা শিক্ষা নিয়েছি। এখন আমরা পরিস্থিতির সঙ্গে অনেক বেশি মানিয়ে নিতে পারি। যে কারণে বলা যায়, গত বারের থেকেও আমরা এ বার ভাল দল।’’

এ বারের বিশ্বকাপে যে দুই ব্যাটসম্যানের উপরে বেশি করে নজর থাকবে, তাঁরা কেউই অবশ্য ইংল্যান্ডের জার্সি পরে নামবেন না। এঁদের মধ্যে এক জন হলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি, অন্য জন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। যে দু’জনকে নিয়ে স্টোকস বলেছেন, ‘‘ওরা দু’জনেই দুর্দান্ত ক্রিকেটার। আমি ওদের দু’জনের বিরুদ্ধেই খেলেছি।’’ তিনি যে কোহালিদের ভক্ত হয়ে উঠেছেন, তাও জানিয়েছেন স্টোকস।

কোহালি এবং স্মিথ কোথায় বাকিদের থেকে আলাদা? স্টোকস বলেছেন, ‘‘ওদের ব্যাট করতে দেখলে মনে হয়, ক্রিকেট খেলাটা কত সোজা। যেটা অন্যদের ব্যাটিং দেখে বোঝা যায় না। কোহালি এবং স্মিথ, দু’জনেরই বিশাল ভক্ত আমি। ওদের নিজস্ব একটা স্টাইল আছে। দু’জনের খেলার ধরনটা আলাদা। কিন্তু দু’জনেই খুব কার্যকর।’’ দু’জনের প্রতি তিনি যে কতটা শ্রদ্ধাশীল, তা পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে স্টোকসের কথায়। ‘‘অবশ্যই আমি যখন ওদের বিরুদ্ধে খেলতে নামব, তখন জেতার জন্যই নামব। কিন্তু জেতা-হারার বাইরেও একটা ব্যাপার থাকে। ওরা যে ভাবে ধারাবাহিক ভাবে নিজেদের কাজটা করে যায়, এক জন নিখাদ ক্রিকেটপ্রেমী হিসেবে সেটা দেখতে আমার ভাল লাগে,’’ বলেছেন তিনি।

বিশ্বকাপে কোহালি, স্মিথের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নামতে হবে স্টোকসকে। যে দু’টো ম্যাচ ঠিক করে দিতে পারে সেমিফাইনালিস্ট কারা হবে। ইংল্যান্ড নিয়ে স্টোকস আরও বলেন, ‘‘আমরা ইদানীং এত ভাল করছি, কারণ ইংল্যান্ড কোনও এক জন বা দু’জন ক্রিকেটারের উপরে নির্ভর করে নেই। গোটা দল ভাল খেলছে। আমাদের দলে জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো, অইন মর্গ্যান, জো রুট, জস বাটলার আছে। আরও কয়েক জন আছে যারা সে ভাবে প্রচারের আলোয় না এলেও নিয়মিত ভাল খেলে চলেছে।’’