• গৌতম ভট্টাচার্য
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ডনের নব্বইয়ের মতোই মহোৎসব হচ্ছে স্যর গ্যারির আশিতে

garry sobers
শুরু হয়ে গিয়েছে গ্যারি সোবার্সের জন্মদিন উদযাপন। স্যর গ্যারি সোবার্স ইন্টারন্যাশনাল স্কুলস ক্রিকেট টুর্নামেন্ট দিয়ে। মধ্যমণি যেখানে স্বয়ং কিংবদন্তি। ছবি টুইটার

মঙ্গলবার বিকেলে জামাইকা ফ্লাইট ধরতে হন্তদন্ত ছুটছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। অ্যান্টিগার হোটেল ঘরে তাঁর দুদ্দাড়ে শেষ মুহূর্তের প্যাকিং চলছে। লং ডিস্ট্যান্স হোয়াটসঅ্যাপ কলে এইটুকু অবশ্য  বলতে পারলেন যে জামাইকা মানে শুধু জামাইকা! সেখান থেকে আর কোথাও নয়। আগামী ক’দিন সেখানকার রাজধানী কিংস্টনই তাঁদের বাসস্থান।

শনিবার থেকে যেখানে শুরু দ্বিতীয় টেস্ট। তার আগে চার ঘণ্টা ফ্লাইট দূরত্বের ব্রিজটাউন ঘুরে যাওয়ার কোনও পরিকল্পনা টিম ইন্ডিয়ার নেই।

শুনে কিছুটা আশ্চর্যই লাগল।  বার্বেডোজের রাজধানী ব্রিজটাউনে যে আপাতত এই সময়ের সবচেয়ে বড় ক্রিকেটসমারোহ আয়োজিত হচ্ছে। স্যর গ্যারি সোবার্সের আশিতম জন্মদিন!

গত অক্টোবরে ব্রাজিল আর ইংল্যান্ড একই রকম সাড়ম্বরে পালন করেছিল পেলের পঁচাত্তরতম জন্মদিন। আর এই বিষ্যুদবার বার্বেডোজ তার প্রিয় সন্তানের আশি বছর পূর্তি ঘিরে রং, রস আর ফুর্তিতে টইটুম্বুর হতে চায়।

উৎসবের নাম ‘স্যর গ্যারি এইট্টি নট আউট’। সোবার্স যখন— একটা ক্রিকেট ম্যাচ অবশ্যই থাকবে। আর সেই ম্যাচটা কেনসিংটন ওভালে শুরু হবে সন্ধে সাড়ে সাতটায়। প্রতিদ্বন্দ্বী দু’দলের ম্যানেজার ক্লাইভ লয়েড ও ভিভিয়ান রিচার্ডস। এ দিন লয়েড ই-মেলে আনন্দবাজারকে জানালেন, টিমের পুরো গঠন কী এখনও জানেন না। রাতের দিকে বার্বেডোজ পৌঁছে জানতে পারবেন।

শোনা যাচ্ছে, ম্যাচ খেলার জন্য আমন্ত্রণ পেয়েছেন ফ্লিন্টফ-জয়সূর্যরা। খেলবেন ওয়ালশ-লারা-হুপার-অ্যামব্রোজ। তাঁদের সঙ্গে আরও একঝাঁক বিশ্বক্রিকেটের নক্ষত্র। বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে সুনীল গাওস্করকে। ভারত থেকে রবি শাস্ত্রীকেও ডাকা হয়েছে। ছ’বলে ছ’ছক্কার সেই রেকর্ডের তিনিও যে একজন অংশীদার। অজিত ওয়াড়েকর এখন ছেলের কাছে হিউস্টনে। সোবার্সের ঘনিষ্ঠ বন্ধু তিনি। হয়তো এসে পড়বেন। ল্যাঙ্কাশায়ার থেকে আসার কথা ফারুখ ইঞ্জিনিয়ারের।

ডন ব্র্যাডম্যানের নব্বইতম জন্মদিন পালনে যেমন দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। অস্ট্রেলীয় সরকারই উড়িয়ে নিয়ে যায় সচিন তেন্ডুলকরকে। স্যর গ্যারির আশিতম জন্মদিন ঘিরেও উদ্বেল তাঁর দেশের সরকার। এটা আপাতত জাতীয় ইভেন্ট।

গ্যারি সোবার্স হলেন তর্কহীন ভাবে বিশ্বের সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডার। ৯৩ টেস্টে ৮০৩২ রান (গড় ৫৭.৭৮), ২৩৫ উইকেট আর ১০৯ ক্যাচ আজও ক্রিকেটের সুউচ্চ সৌধের মতো দাঁড়িয়ে। ইয়ান বোথাম বা জাক কালিসরা এসেছেন। খেলেছেন। সোবার্সের মর্যাদাকে বিন্দুমাত্র আক্রান্ত না করতে পেরেই। একইরকম তর্কহীন ভাবে স্যর গ্যারি হলেন বার্বেডোজের সর্বকালের সেরা রফতানি।

বার্বেডোজ সরকার তাই জন্মদিনের প্রধান উদ্যোক্তা। একটা বড়সড় কমিটি বানানো হয়েছে জন্মদিনের উৎসব সংগঠনে। যেখানে স্থানীয় সেনেটর-সহ রয়েছেন বার্বেডোজ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট জোয়েল গার্নার। আছেন ওয়েসলি হল। এক সময়ের সোবার্সের টিমের পেস বোলিং নক্ষত্র।

ব্র্যাডম্যানের জন্মদিনে তাঁর শৈশব কাটানো মাঠ বাউরালের ব্র্যাডম্যান ওভালে একটা প্রদর্শনী ম্যাচ হয়েছিল। কিন্তু গ্ল্যামারে বার্বেডোজের পাশে তা নিছকই সাদামাটা। স্যর গ্যারির জন্য আয়োজিত ম্যাচের আধঘণ্টা আগে শুরু হবে উদ্বোধনী উৎসব।

আবার ম্যাচ শেষে  আমন্ত্রণমূলক ডিনার— অ্যান ইভনিং উইথ স্যর গ্যারি। সোবার্সের জন্মদিন ২৮ জুলাই হলেও জন্মদিন উৎসব শুরু হয়ে গিয়েছে তেসরা জুলাই থেকে। স্যর গ্যারি সোবার্স ইন্টারন্যাশনাল স্কুলস ক্রিকেট টুর্নামেন্ট দিয়ে। আর শেষ হবে এ মাসের শেষ দিন। আমন্ত্রণমূলক গল্ফ টুর্নামেন্টে। সোবার্স যেহেতু ক্রিকেটোত্তর গল্ফও যথেষ্ট দক্ষতার সঙ্গে খেলেছেন, উদ্যোক্তারা এই টুর্নামেন্টকে সঙ্গী হিসেবে রেখেছেন।

এক সময় বলা হত বার্বেডোজের ছোট একটা পাড়াই গোটা ওয়েস্ট ইন্ডিজ টিমের হয়ে বিশ্ব জিতিয়ে দিতে পারে। তার মোড়ে মোড়ে এত ক্রিকেটার। সেই ক্রিকেট নক্ষত্রদের কেউ কেউ বিদেশ চলে গিয়েছেন। কেউ ওরেল-ওয়ালকট বা মার্শালের মতো মারা গিয়েছেন। কিন্তু জীবিতদের মোটামুটি সকলকে জড়ো করার চেষ্টা হচ্ছে। সোবার্সের টিমের প্রাক্তন নক্ষত্র ল্যান্স গিবস এখন থাকেন মায়ামিতে। মাইকেল হোল্ডিংও তাই। এঁদের ফোনে ধরা গেল না। শুনলাম দু’জনেই আসতে পারেন।

বার্বেডোজে ফোন করে জানা গেল গোটা দ্বীপপুঞ্জ এই উৎসব ঘিরে চেগে রয়েছে। স্যর গ্যারির সেরা সময় যতই অর্ধশতাব্দী পেছনে চলে যাক। নতুন প্রজন্মের কাছে যতই তিনি অপ্রাসঙ্গিক আর বৃদ্ধ পিতামহমার্কা হয়ে পড়ুন। তাঁর প্রাক্ জন্মদিন মুহূর্তে  দ্বীপবাসী যেন অসম্ভব নস্ট্যালজিক। সোবার্সের স্বাস্থ্য ইদানীং ভাল যাচ্ছে না। নইলে জন্মদিন উৎসবকে আরও লম্বা করা হত।

সোবার্স এত বড় ক্রিকেটার হয়েও  এমন অমায়িক যে, মানুষ হিসেবেও তাঁর বাড়তি গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

বার্বেডোজ ক্রিকেটমহল মনে করে লোকটা ক্রিকেট মাঠে অফুরন্ত বিনোদন দিয়ে গিয়েছে। জেতা-হারার কথা চিন্তা না করে দর্শকদের আনন্দের কথা প্রথম ভেবেছে। আর তাই রাজকীয় সম্মান আর ফুর্তি এর প্রাপ্য।

বার্বেডোজ সোবার্সকে কী চোখে  দেখে, অনুষ্ঠানের থিম নির্বাচন থেকে তা পরিষ্কার। থিম হল সেলিব্রেশন অব দ্য গ্রেটেস্ট ক্রিকেটার অন আর্থ অ্যান্ড মার্স। পৃথিবী ও মঙ্গলগ্রহ মিলিয়ে গ্রেটেস্ট ক্রিকেটারের উদযাপন!    

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন