অধিনায়ক থাকালীন বিশ্বকাপে রানার-আপ হওয়ার স্বাদ আগেই পেয়েছেন ব্রেন্ডন ম্যাকালাম। ২০১৫-র বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে হেরে প্রথম বার রানার-আপ হয়েছিল নিউজ়িল্যান্ড। কিন্তু গত বারের হারের সঙ্গে এ বারের হার তিনি তুলনা করতে চান না। 

শনিবার ম্যাকালাম বলেন, ‘‘২০১৫-র ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খুব খারাপ ভাবে আমরা হেরেছিলাম। কখনওই ম্যাচের মধ্যে ছিলাম না। কিন্তু এ বারের হারের সঙ্গে তা তুলনায় আসে না। এ বার আমরা হারিনি। একজন চ্যাম্পিয়নের মতোই খেলেছি। হেরেছি বাউন্ডারির নিরিখে। যা হৃদয়বিদারক।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘ম্যাচ শেষে ওদের সঙ্গে কথা বলি। ওদের বোঝাই, এই ম্যাচের জন্যই এক দিন ওরা গর্বিত হবে। সে দিন এই দুঃখ ভুলে আনন্দে ভেসে যাবে। ওদের জন্য আমরাও গর্বিত।’’

জানা গিয়েছে, ফাইনাল শেষে দলের প্রত্যেকের সঙ্গে কথা বলেন ম্যাকালাম। যা নিয়ে তিনি বলেছেন, ‘‘ম্যাচ শেষে ড্রেসিংরুমে ওদের সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটাই। সবাই মানসিক ভাবে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছিল। প্রত্যেককে বলি, ভেঙে পড়ার কিছু হয়নি। এই পারফরম্যান্সই এক দিন ওদের হাতে কাপ তুলে দিতে পারে। একটি ম্যাচ দিয়ে কারও দক্ষতার বিচার হয় না।’’

বিশ্বকাপে নিউজ়িল্যান্ডের খেলা দেখে তাঁদের কোন জায়গায় রাখবেন প্রাক্তন অধিনায়ক? ম্যাকালামের উত্তর, ‘‘আরও একটি সুযোগ হাতছাড়া করেছি। সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু এই বিশ্বকাপ আমাদের সারা জীবন মনে থাকবে। সেমিফাইনালে ভারতের বিরুদ্ধে যে ক্রিকেট আমরা খেলেছি তা অসামান্য। আর ফাইনালে এক বারও ইংল্যান্ডকে মাথার উপর বসতে দিইনি। ক্রমাগত চাপ তৈরি করেছি। ক্রিকেট বিশ্বকে বুঝিয়ে দিয়েছি, নিউজ়িল্যান্ড আর যাই হোক, আন্ডারডগ নয়।’’

২০২৩ সালে ভারতে বিশ্বকাপ। তখন জিমি নিশাম, ট্রেন্ট বোল্টরা খেলবেন কি না, ঠিক নেই। তবে যাঁরাই খেলুন, নিউজ়িল্যান্ডকে কেউ আর হাল্কা ভাবে নেবে বলে মনে হয় না।