বিশ্বের অন্যতম সেরা দাবাড়ু ছিলেন। কিন্তু কোনওদিন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হতে পারেননি। তিনি— রাশিয়ার বিখ্যাত দাবাড়ু ভিক্টর করশনয় সোমবার মারা গেলেন। বয়স হয়েছিল ৮৫। দাবা বিশ্বে তাঁকে বলা হত ‘ভিক্টর দ্য টেরিবল’। আগ্রাসী কাউন্টার-অ্যাটাক সঙ্গে দুর্দান্ত ডিফেন্স। এটাই ছিল তাঁর খেলার স্টাইল। ১৯৮২-তে তাঁকে লন্ডনে হারিয়েছিলেন ১৬ বছরের দিব্যেন্দু বড়ুয়া। বাংলার প্রথম গ্র্যান্ডমাস্টার এ দিন বলেন, ‘‘ভিক্টর করশনয় মানেই বদমেজাজি, রাগি এক জন দাবাড়ু। দাবার বোর্ডে আবার তুখোর প্রতিদ্বন্দ্বী। এখনও মনে আছে ৮২-তে ডয়েশ ব্যাঙ্ক টুর্নামেন্টে আমার কাছে হারার পর প্রথমে বিশ্বাস করতে পারেননি। পরে ১৯৯৩-তে দ্বিতীয় বার যখন সুইৎজারল্যান্ডে মুখোমুখি হন আমাকে হারাবেনই জেদ রেখে খেলতে বসেছেন মনে হচ্ছিল। সে বার ড্র হয়েছিল। দীর্ঘদিন উনি দাবা সার্কিটে বয়স্কতম সক্রিয় প্লেয়ার ছিলেন। ওঁর মৃত্যুতে বিরাট ক্ষতি হল দাবা বিশ্বের।’’

১৯৩১-এ সোভিয়েত ইউনিয়নে জন্ম করশনয়ের। তবে ১৯৭৬-এ নেদারল্যান্ডসে চলে যান। পরে বহু বছর ছিলেন সুইৎজারল্যান্ডে। সেখানেই মারা গেলেন। চার বার সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের সেরা দাবাড়ু হয়েছিলেন। পাঁচ বার সদস্য ছিলেন ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী সোভিয়েত দলের। চেস অলিম্পিয়াড জিতেছেন ছ’বার। তবে তাঁর সবচেয়ে বিখ্যাত লড়াই রাশিয়ার গ্র্যান্ডমাস্টার এবং প্রাক্তন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আনাতোলি কারপোভের বিরুদ্ধে। তিন বার কারপোভের মুখোমুখি হয়েছেন। প্রথমে ক্যান্ডিডেটসের ফাইনালে ১৯৭৪-এ। এর পর বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ১৯৭৮ আর ১৯৮১-তে। কিন্তু বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের অধরা স্বপ্নের মতো কারপোভকে হারানোর ইচ্ছেও কোনওদিন পূরণ হয়নি করশনয়ের।