কোপা আমেরিকায় এখনও লিয়োনেল মেসি তেমন ভাবে জ্বলে উঠতে পারেননি। তা সত্ত্বেও বারো বছর পরে ফের এই প্রতিযোগিতায় ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা মুখোমুখি হওয়ার পর মেসি-ই যাবতীয় আশা ও আশঙ্কার প্রতীক।

ভেনেজ়ুয়েলা ম্যাচের পরে মেসি বলেছেন, ‘‘এটা ঠিক আমি এখনও এ বারের কোপায় নিজের সেরা খেলাটা খেলতে পারিনি। ব্রাজিলের সঙ্গে ম্যাচ মানেই অন্য রকম অনুভূতি এবং উত্তেজনা জড়িয়ে থাকে। ওই ম্যাচটা জেতার জন্য আমাদের চেষ্টার ত্রুটি থাকবে না।’’ 

মেসি চেষ্টার কথা বললেও আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম কিন্তু লিখতে শুরু করে দিয়েছে, ‘‘নিজেকে দেখানোর জন্য  বুধবারের ভোরের ম্যাচটাই সেরা মঞ্চ হতে চলেছে লিয়োর।’’ মেসি এর আগে বিশ্বের চারটে বড় টুনার্মেন্টের ফাইনালে উঠেও সফল হননি। ২০১৪ বিশ্বকাপ ফাইনাল, ২০০৭, ২০১৫ এবং ২০১৬ কোপার ফাইনালেও সফল হতে পারেননি। ২০০৭ সালে কোপা ফাইনালে শেষবার ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা মুখোমুখি হয়েছিল। মেসি মাঠে থাকা সত্ত্বেও ব্রাজিল জিতেছিল তিন গোলে।

সেমিফাইনালে ওঠার পরে মাঠ নিয়ে সরব হয়েছিলেন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক। মেসির বক্তব্য, ‘‘কোপায় যে মাঠে খেলা হচ্ছে তা খেলার অযোগ্য। বল যাচ্ছে ইঁদুরের মতো। বল যে কোনও জায়গায় চলে যাচ্ছে পাস বাড়ালে। ড্রিবল করতে গেলেও সমস্যায় পড়তে হচ্ছে।’’ যে অভিযোগের পর শোরগোল পড়ে গিয়েছে ব্রাজিলে। তা সত্ত্বেও ব্রাজিলের ডিফেন্ডার থিয়াগো সিলভা বলে দিয়েছেন, ‘‘আমার মতে মেসি বিশ্বের ফুটবল ইতিহাসে সেরা ফুটবলার। ওর বিরুদ্ধে খেলতে নামাটাই বিরাট ব্যাপার। ওর উপরে আমাদের সবসময় নজর রাখতে হবে এবং রুখতে হবে। ওকে কোনও মতেই জায়গা দেওয়া চলবে না।’’ যা থেকে স্পষ্ট মেসিই তাদের যাবতীয় মাথাব্যথার কারণ।