অনেক দিন ধরেই তিনি এই অভিযোগ করে আসছিলেন। তবে প্রমাণ করতে পারেননি কিছুই। এ বার এক টিভি চ্যানেলের গোপন ক্যামেরা অভিযানে দুষ্কৃতীদের নির্দেশে পিচ বিকৃতির অভিযোগ ওঠায় ফের সরব হলেন শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়ক অর্জুন রণতুঙ্গা।

বর্তমানে সে দেশের মন্ত্রী রণতুঙ্গার সাফ কথা, ‘‘শ্রীলঙ্কায় ক্রিকেটে দুর্নীতি চরমে পৌঁছেছে। আর এই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত ছোটখাটো লোকেরা ধরা পড়লেও আসল লোকেরা ঠিক পালিয়ে যাবে।’’ গোপন ক্যামেরায় তোলা তথ্যচিত্রে অভিযোগ উঠেছে শ্রীলঙ্কার এক ক্রিকেটার ও মাঠকর্মী একটি টেস্টে পিচ বিকৃতিতে জড়িত ছিলেন এবং ভারত-ইংল্যান্ড ও ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্টে স্পট ফিক্সিং হয়েছিল। রণতুঙ্গা বলছেন, ‘‘এই অভিযোগগুলো অবশ্যই তদন্ত করে দেখা উচিত। অনেক আগে থেকেই এটা হওয়া উচিত ছিল।’’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) বিরুদ্ধেও সরব রণতুঙ্গা বলেন, ‘‘আইসিসি-র দুর্নীতি দমন বিভাগের কর্তাদের কার্যকলাপে আমি খুব হতাশ। শ্রীলঙ্কায় কী হচ্ছে, ওরা যদি তা দেখতেই না পায়, তা হলে দুর্নীতি দমন বিভাগে ওদের থাকাই উচিত নয়।’’ রণতুঙ্গার ফের বলছেন, ‘‘কোনও বড় মাথা এর পিছনে না থাকলে টিভিতে দেখানো লোকগুলো এমন জঘন্য কাজ করার সাহসই পেত না।’’ গলের মাঠকর্মী তরঙ্গা ইন্ডিকা ও কোচ থারিন্ডু মেন্ডিস সম্পর্কেই কথাগুলো বলেন রণতুঙ্গা। এই দু’জনকে সাময়িক নির্বাসনে পাঠিয়েছে শ্রীলঙ্কার বোর্ড। তবে বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের ধারণা, ওঁরা এমন কোনও ব্যক্তির নির্দেশ মেনে এই কাজ করেছেন, যিনি ধরাছোঁয়ার বাইরে।