• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ধোনিদের হারে প্রথম দুইয়ের আশা কেকেআরে

Shreyas Iyer and MS Dhoni
সৌজন্য: দুই প্রজন্মের দুই অধিনায়ক। দিল্লির শ্রেয়স আইয়ার ও চেন্নাইয়ের ধোনি। শুক্রবার ম্যাচের পরে অবশ্য ধোনির হাসিমুখ থাকল না। ছবি: পিটিআই

Advertisement

প্লে-অফের সামনে এসে জোর ধাক্কা খেল চেন্নাই সুপার কিংস। শুক্রবার ফিরোজ শাহ কোটলায় তারা দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের কাছে ৩৪ রানে হেরে যাওয়ায় লিগ তালিকায় তাদের প্রথম দুইয়ে থাকা নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দিল। রবিবার তারা শেষ ম্যাচে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের কাছে বড় ব্যবধানে হারলে ও শনিবার হায়দরাবাদে কলকাতা নাইট রাইডার্স বড় ব্যবধানে সানরাইজার্সকে হারাতে পারলে, ধোনিদের সরিয়ে কেকেআর দু’নম্বরেও উঠতে পারে।

দিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে ১৬২ রানের মধ্যে আটকে রেখে পাওয়ার প্লে-তে ৪৪ রান তুলে ফেলেছিলেন চেন্নাই সুপার কিংসের দুই ওপেনার শেন ওয়াটসন ও অম্বাতি রায়ডু। কিন্তু শুক্রবার ফিরোজ শাহ কোটলায় ৯৩ রানের মধ্যে তাঁরা এবং সুরেশ রায়না ও স্যাম বিলিংসও ফিরে যাওয়ায় চাপে পড়ে যায় চেন্নাই। দু’ওভার বাকি থাকতে মহেন্দ্র সিংহ ধোনিও শ্রেয়াস আইয়ারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান। শেষ দু’ওভারে রবীন্দ্র জাডেজা, ডোয়েন ব্র্যাভোরা জেতার জন্য ৫০ রান আর তুলতে পারেননি। ট্রেন্ট বোল্ট, অমিত মিশ্র ও নেপালের ১৭ বছর বয়সি লেগস্পিনার সন্দীপ লামিছানের দাপটে সিএসকে এ দিন আটকে যায়। কুড়ি ওভারে ১২৮ রানের বেশি তুলতে পারেনি তারা। 

শুক্রবারের এই ম্যাচের পরে আইপিএলের সেরা চারের শেষ দুই স্থান পাওয়ার লড়াইয়ের মতো জমে উঠল প্রথম দুইয়ে থাকার লড়াইও। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ও চেন্নাই শেষ তিন ম্যাচের মধ্যে দু’টি করে হেরে যাওয়ায় এই পরিস্থিতি দাঁড়াল। শুক্রবার রাতে লিগ তালিকার যা অবস্থা দাঁড়াল, তাতে চেন্নাই এক নম্বরেও যেমন থাকতে পারে, তেমনই প্রথম দুইয়ের বাইরেও চলে যেতে পারে। সেই জায়গায় উঠে আসতে পারে কেকেআর।

ধোনিরা রবিবার রাতে তাদের শেষ ম্যাচ বড় ব্যবধানে জিতলে ও শনিবার হায়দরাবাদ বড় ব্যবধানে কলকাতার কাছে হারলে ধোনিরা এক নম্বরে উঠে যেতে পারেন। আবার কলকাতা বড় ব্যবধানে জিতলে ও চেন্নাই বড় ব্যবধানে হারলে তাদের তিনে নামিয়ে কলকাতা দুইয়ে উঠে যেতেও পারে।

দিল্লি এই আইপিএলে মাত্র চার ম্যাচ জিতলেও তারা হারাল তিনবারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে, দু’বারের চ্যাম্পিয়ন কেকেআর-কে, প্রথম চ্যাম্পিয়ন রাজস্থান রয়্যালস ও শেষে দু’বারের চ্যাম্পিয়ন সিএসকে-কেও। এই অপ্রত্যাশিত হার নিয়ে ধোনি এ দিন মূলত দায়ী করেন কোটলার বাইশ গজকেই।

টস জিতে পরে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে উইকেট ব্যাটিংয়ের পক্ষে খুব কঠিন হয়ে ওঠে বলে জানান তিনি। বলেন, ‘‘আমাদের ব্যাটিংয়ের সময় ঠিকমতো ব্যাটে-বলে করাই যাচ্ছিল না। দ্রুত উইকেটের গতি কমে যায়। ওদের বোলাররাও ভাল বোলিং করেছে।’’

দলে আত্মতুষ্টির আশঙ্কা নিয়ে ধোনি বলেন, ‘‘দলের সবাইকে লিগ তালিকার দিকে মন দিতে নিষেধ করেছিলাম। তবে কিছু ব্যাপারে আমাদের উন্নতি করতেই হবে। যেমন মিডল অর্ডারে পার্টনারশিপ গড়া। শেষের দিকের বোলিংয়েও আরও উন্নতি দরকার।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন