বাংলাদেশের পেস বোলিং-এর কোচ হলেন দক্ষিণ আফ্রিকার চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্ট ও স্পিন বোলিং কোচ হলেন নিউজিল্যান্ডের ড্যানিয়েল ভেত্তোরি। বাংলাদেশের স্পিন কোচ হিসেবে কাজ করা সুনীল জোশীর মেয়াদ শেষ হয় বিশ্বকাপের পরেই। বিশ্বকাপে ভরাডুবির পর সেই চুক্তি আর নতুন করে করেনি বাংলাদেশ। কোর্টনি ওয়ালশের পরিবর্তে দু’বছরের জন্য ল্যাঙ্গেভেল্ট এর কাঁধে দেওয়া হল পেস বোলিং-এর দায়িত্ব। প্রাক্তন কিউয়ি অধিনায়ক অবশ্য জানিয়েছেন যে, তিনি ১০০ দিনের বেশি সময় দিতে পারবেন না শাকিবদের। ল্যাঙ্গেভেল্ট কয়েক দিনের মধ্যে কাজ শুরু করলেও, ভেত্তোরি দলের সঙ্গে ভারত সফরের আগে যোগ দেবেন বলে জানা গিয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে একদিনের ক্রিকেটে সর্বাধিক উইকেট সংগ্রাহকের সঙ্গে কাজ করার জন্যে মুখিয়ে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন শাকিব, মেহদিরা। আইপিএলে বিরাটদের কোচ হিসেবে চার বছর কাজ করেছেন ভেত্তোরি। শাকিবদের কোচ হিসেবে তিনি কাজ করবেন ২০২০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অবধি। অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার পেসারকে পূর্ণ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে দু’বছরের জন্য। প্রোটিয়াদের হয়ে একদিনের ম্যাচে ১০০ উইকেট নেওয়া ল্যাঙ্গেভেল্ট কাজ শুরু করবেন কিছু দিনের মধ্যেই। ভেত্তোরি এই মুহূর্তে আমেরিকাতে।

২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে শেষ বারের জন্যে মাঠে নামেন ল্যাঙ্গেভেল্ট। তাঁর দু’দিকেই সুইং করানোর ক্ষমতা মুশকিলে ফেলত ব্যাটসম্যানদের। যদিও টেস্ট খেলেছিলেন তিনি মাত্র ৬টি। উইকেট নিয়েছিলেন ১৬টি। তিনি বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকা ও আফগানিস্তানের সঙ্গে। এই মুহূর্তে বাংলাদেশের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসেবে কাজ করছেন দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ। স্টিভ রোডস দায়িত্ব ছাড়ার পর এখনও স্থায়ী কোচ নিযুক্ত করেনি বাংলাদেশ। মর্তুজাদের স্পিন বিভাগ বরাবরই শক্তিশালী। সেই বিভাগের দায়িত্ব নিয়ে, ভেত্তোরি আরও উন্নতি করতে পারেন কিনা মেহেদিদের সেটাই এখন দেখার।

আরও পড়ুন: শুরু হচ্ছে টেস্ট ক্রিকেটের বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ, জেনে নিন খুঁটিনাটি

আরও পড়ুন: কিসের অনুপ্রেরণায় অজি ওপেনার টেস্ট দলে ফিরলেন জানেন?