এশিয়ান এয়ারগান শুটিং চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে নাম তুলে নিলেন ভারতীয় শুটার হিনা সিধু। ইরানে অনুষ্ঠিত শুটিংয়ের এই আসরে মহিলা প্রতিযোগীদের জন্য ‘হিজাব’ পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই ড্রেসকোড মেনে নিতে পারেননি হিনা। সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে তিনি বলেন, “বিদেশি পর্যটক এবং অতিথিদের হিজাব পরতে বাধ্য করাটা গেম স্পিরিটের বিরুদ্ধে। আমি এটা কোনও ভাবেই মেনে নিতে পারিনি। তাই টুর্নামেন্ট থেকে নাম তুলে নিয়েছি।”

সংগঠকদের বিরুদ্ধে রীতিমতো ক্ষোভ উগরে দিয়ে হিনা বলেন, “প্রত্যেকেরই তাঁর নিজস্ব ধর্মের প্রতি বিশ্বাস রয়েছে। অন্যের ধর্মীয় বিশ্বাস যদি জোর করে কারও উপর চাপিয়ে দেওয়া হয় তা হলে সেটা অন্যায়।”

টুর্নামেন্টের আয়োজকরা তাঁদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে স্পষ্ট ভাবে উল্লেখ করেছিলেন, মহিলা প্রতিযোগীদের সে দেশের রেওয়াজ রীতি মেনেই পোশাক পরে খেলতে নামতে হবে। এটাই প্রথম ঘটনা নয়, এর আগেও হিনা ইরানে অনুষ্ঠিত টুর্নামেন্ট থেকে নাম তুলে নিয়েছিলেন। এই ঘটনার কথা স্বীকার করে হিনা বলেন, “হ্যাঁ, দু’বছর ঠিক একই কারণে টুর্নামেন্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলাম।” ড্রেসকোড নিয়ে ইরানের মতো কোনও দেশে এমন কড়াকড়ি নেই বলেও জানিয়েছেন হিনা।

হিনার ঘটনা প্রসঙ্গে ভারতীয় রাইফেল অ্যাসোসিয়শন-এর প্রেসিডেন্ট রাজেন্দ্র সিংহ জানান, ইরানের সংস্কৃতিকে সব সময়ই সম্মান জানিয়ে এসেছে ভারত। সেখানে যখনই কোনও বিদেশি মহিলা পর্যটক গিয়েছেন হিজাব পরেছেন। অনেক ভারতীয় মহিলা শুটারও ইরানে খেলতে গিয়ে হিজাব পরেছেন। কিন্তু ব্যতিক্রমী হিনা।

আরও খবর...

সমুদ্রসৈকতে সিরিজ জেতার লড়াই