এখনও পুরো সুস্থ হতে পারেননি রিয়ো অলিম্পিক্সে চতুর্থ হওয়া ত্রিপুরার জিমন্যাস্ট দীপা কর্মকার। তাই ২০২০-র টোকিয়ো অলিম্পিক্সে তিনি শেষ পর্যন্ত নামতে পারবেন কি না তা নিয়ে ধোঁয়াশা থেকেই যাচ্ছে। 

দীপার কোচ বিশ্বেশ্বর নন্দী অবশ্য জানাচ্ছেন, তাঁদের তরফ থেকে দীপাকে টোকিয়োয় পাঠানোর চেষ্টায় খামতি থাকবে না। ‘‘দীপাকে আবার প্রতিযোগিতায় নামানোর সব চেষ্টা করছি। এবং সেটা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব,’’ বলেছেন বিশ্বেশ্বর। সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘‘টোকিয়োয় ও নামতে পারবে না এমন কথা এখনই বলার মতো অবস্থা হয়নি। তবে ওকে প্রতিযোগিতায় নামানোর জন্য কোনও তাড়াহুড়ো করব না।  একমাত্র তখনই ও প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে, যখন বুঝবে নিজের সেরাটা দিতে পারবে।’’

হাঁটুর চোটের চিকিৎসার সঙ্গে রিহ্যাবও চলছে দীপার। যা একটু বেশি দিন ধরেই চলছে। যে কারণে তিনি মঙ্গোলিয়ায় ১৩ থেকে ১৬ জুন হতে যাওয়া এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিতে পারবেন না। এমনকি অক্টোবরে জার্মানির বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপেও তিনি অনিশ্চিত। অথচ জার্মানির প্রতিযোগিতাও অলিম্পিক্সের যোগত্য অর্জনের একটা ধাপ। অবশ্য যোগত্যা অর্জনের জন্য মোট আটটি বিশ্বকাপও রয়েছে। এই প্রতিযোগিতাগুলোর সেরা তিন জন অলিম্পিক্সে নামার সুযোগ পাবেন। দীপা এখন তাঁর নিজের শহর আগরতলাতেই আছেন। মার্চে বাকু বিশ্বকাপের সময় তাঁর হাঁটুর চোট আরও বেড়ে য়ায়। তখন থেকেই চলছে চিকিৎসা। বিশ্বেশ্বর বলেছেন, ‘‘কথা দিচ্ছি, একদিন না একদিন দীপা জিমন্যাস্টিক্সে ফিরবেই।’’