চলে গেলেন ইংল্যান্ডের প্রবাদপ্রতিম গোলকিপার গর্ডন ব্যাঙ্কস। বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। ঘুমের মধ্যেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয়েছে ব্যাঙ্কসের পরিবারের তরফ থেকে। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বিশ্ব ফুটবল জগতে।

১৯৬৬ সালে ইংল্যান্ডের একমাত্র বিশ্বকাপ জয়ের পিছনে বড় ভূমিকা ছিল ব্যাঙ্কসের। ওই বছরই বিশ্বকাপের আসরে সেমিফাইনালের আগে কোনও বলই নিজেদের জালে ঢুকতে দেননি তিনি। নিজের কেরিয়ারে মোট ৬ বার ফিফার বিশ্বসেরা গোলরক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। ক্লাব স্তরে খেলেছেন চেস্টারফিল্ড, লেস্টার সিটি, স্টোক সিটির হয়েও।

এর পর ১৯৭০। বিশ্বকাপ জয়েও যে আলো তিনি পাননি, সেই আলো তাঁর উপর এসে পড়ল বিশ্বকাপের ব্রাজিল বনাম ইংল্যান্ডের ম্যাচে। কিংবদন্তি পেলের একটি হেড অবিশ্বাস্য ভাবে বাঁচিয়ে দেওয়ার জন্য। গোলে বল ঠেলে সেলিব্রেশনের জন্য প্রস্তুত পেলে। চিৎকারও করে উঠেছেন ‘গোল’ বলে। হঠাৎ দেখলেন কী ভাবে যেন উড়ে এসে দু’আঙুলের টোকায় সেই বল বারের উপর দিয়ে বের করে দিলেন গোলকিপার! কিংবদন্তি স্টাইকার এগিয়ে গেলেন আরেক কিংবদন্তি গোলকিপারের দিকে। পিঠ চাপড়িয়ে বলে এলেন ‘গুড সেভ’।

১৯৭২ সালে একটি দুর্ঘটনায় চোখের দৃষ্টি হারান তিনি। অন্ধকার নেমে আসে ফুটবল কেরিয়ারে। কিন্তু ততদিনে বিশ্বের অন্যতম সেরা গোলরক্ষকদের তালিকায় পাকাপাকি ভাবে বসে গিয়েছে তাঁর নাম। ব্যাঙ্কসের মৃত্যুতে শেষ হয়ে গেল সেই সোনালী প্রজন্মের আরেকটি অধ্যায়। ব্যাঙ্কসের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ফুটবল মহলে। ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি স্ট্রাইকার জিওফ হার্স্ট টুইটারে শোক জ্ঞাপন করেছেন ব্যাঙ্কসের মৃত্যুতে।

আরও পড়ুন: বার্সেলোনার সেই জাদু সিটিতেও আনতে চান পেপ

শোক জ্ঞাপন করেছেন দেশ-বিদেশের বহু ফুটবল অনুরাগী। ব্যাঙ্কসের মৃত্যুতে বিশেষ টুইট করে শোক জ্ঞাপন করা হয়েছে ফিফার তরফেও।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের দল বাছলেন হরভজন, জায়গা হল না দুই তারকার