• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মেসিদের তাতাতে শিবিরে যেতে চান মারাদোনা

Diego Maradona
এভাবেই প্রথম থেকে আর্জেন্টিনাকে সমর্থন করে আসছেন মারাদোনা। ফাইল চিত্র।

Advertisement

শুধু একা নন। সঙ্গীদের নিয়েই যেতে চান আর্জেন্টিনা শিবিরে। উদ্ধুদ্ধ করতে চান মহা-গুরুত্বপূর্ণ নাইজিরিয়া ম্যাচের আগে। কারণ, ক্রোয়েশিয়ার কাছে তিন গোলে হার দিয়েগা মারাদোনা যে কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না।

সঙ্গী মানে অবশ্য তাঁরাও বিশ্বকাপার। এবং কেউ কেউ ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্যও। মারাদোনা সোজাসুজি বলেছেন, “ভাল লাগত ফুটবলারদের সঙ্গে কথা বলতে পারলে। চাইব নেরি পম্পিদু, সোর্জিও গায়কোচিয়া, ক্লদিও ক্যানিজিয়া, পেড্রো ট্রোগলিও, জর্জ ভালদানোদের সঙ্গে নিয়ে যেতে। যদি চায়, আসতে পারে ড্যানিয়েল পাসারেলাও।”

ক্রোয়েশিয় ম্যাচ ফুটবলার সত্তাতেই আঘাত হেনেছে মারাদোনার। আহত করেছে বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের ইগোকে। তাঁর কথায়, “আমি প্রচণ্ড উত্তেজিত। ভিতরে ভিতরে মারাত্মক হতাশও। কারণ, নীল-সাদা জার্সি যে পরেছে, তার পক্ষে ক্রোয়েশিয়ার কাছে তিন গোল মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। জার্মানি, ব্রাজিল, হল্যান্ড বা স্পেন হলে তাও মানা যেত। কিন্তু, ক্রোয়েশিয়ার কাছে এই পরাজয় মানা মুশকিল। আমাদের সম্মান রক্ষার লড়াইয়ে নামতে হবে এ বার।”

এর আগেও বেশ কয়েক বার আর্জেন্টিনা শিবিরে তিনি আসতে চেয়েছিলেন বলে খবর ছড়িয়েছিল। যদিও তা ঘটেনি। কারণ, তাঁর ইচ্ছে তেমন সাড়া পায়নি। আসলে আগ্রহ দেখায়নি শিবিরই। যা ফিসফাস, তাতে স্বয়ং লিওনেল মেসিরই বিশেষ আগ্রহ নেই মারাদোনাকে শিবিরে ডাকার ব্যাপারে।

অবশ্য, রাশিয়া বিশ্বকাপে মেসিদের অবস্থা এখন রীতিমতো কোণঠাসা। মঙ্গলবার রাতে নাইজিরিয়াকে হারাতেই হবে। তার পরও তাকিয়ে থাকতে হবে ক্রোয়েশিয়া-আইসল্যান্ড ম্যাচের দিকে। মাথায় রাখতে হবে গোলের অঙ্ক।

আরও খবর: বিশ্বকাপ: শেষ ষোলোতে কারা উঠে গেল, কারা আউট, কারা ঝুলে

আরও খবর: মেসি, সময় কিন্তু আর বেশি নেই

আরও খবর: আর্জেন্টিনা শিবিরে বিদ্রোহ চরমে, একঘরে কোচ সাম্পাওলি

এই কঠিন পরিস্থিতিতে আর্জেন্টিনা শিবিরের আবহাওয়াও মোটেই আদর্শ নয়। কোচ হর্হে সাম্পাওলির সঙ্গে ফুটবলারদের সম্পর্ক তলানিতে। শোনা যাচ্ছে, ফুটবলাররা পদত্যাগ চেয়েছিলেন কোচের। সেটা না হলেও, ডানা ছেঁটে দেওয়া হয়েছে সাম্পাওলির। বিভিন্ন সংবাদপত্রের রিপোর্ট অনুসারে,নাইজিরিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচে ফুটবলাররাই বেছে নেবেন দল। সাম্পাওলি চাইলে বসতে পারেন বেঞ্চে, না চাইলেও অসুবিধা নেই ফুটবলারদের। এই উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে মারাদোনা যদি কথা বলতে আসেন, তবে তা নাটকীয়তা যে বাড়াবে, তাতে আর সন্দেহ কি!

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন