পাঁচ বছর তিনি ছিলেন পাকিস্তান দলের ব্যাটিং কোচ। প্রাক্তন জিম্বাবোয়ে তারকা গ্রান্ট ফ্লাওয়ার বলে ফেললেন, ওই পাঁচ বছর ছিল তাঁর জীবনে সব চেয়ে খারাপ সময়।

ফ্লাওয়ার জানিয়েছেন, ওই পাঁচ বছরে তিনি কোনও সময়ে পাননি কাজ করার স্বাধীনতা। তারই সঙ্গে নিরাপত্তা সংক্রান্ত উৎকণ্ঠা তাঁকে ক্রমশ হতাশ করে তুলেছিল। ফ্লাওয়ার বলেছেন, ‘‘এক দিকে নিরাপত্তা নিয়ে অস্বস্তি, অন্য দিকে কাজ করার কোনও স্বাধীনতাই পাইনি। ফলে আমি অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলাম।’’

২০১৪ সালে পাক দলের ব্যাটিং কোচ হিসেবে সরফরাজ়দের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন ফ্লাওয়ার। এ বার বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পরে পাক বোর্ড জানিয়ে দিয়েছে, তাঁর সঙ্গে নতুন ভাবে চুক্তি করা হবে না। সেই সিদ্ধান্ত শোনার পরে মুখ খুলেছেন জিম্বাবোয়ে দলের প্রাক্তন তারকাও। তাঁর মন্তব্য, ‘‘প্রাক্তন ক্রিকেটারেরা যে ভাবে পিছন থেকে ছুরি মারতেন, তা কল্পনাতীত ছিল। তারই সঙ্গে বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে যে ধরনের নোংরা রাজনীতি হত, সেটা সহ্য করা যায় না। আর পাক বোর্ডের অন্দরমহলে যে ধরনের অনৈতিক রাজনীতি হত, সেটা আমি ভুলতে পারব না।’’

পাশাপাশি ফ্লাওয়ার জানিয়েছেন, তাঁর দেখা সেরা পাক ব্যাটসম্যান বাবর আজ়ম। এবং সব চেয়ে খারাপ ব্যাটসম্যান ছিলেন হ্যারিস সোহেল। তাঁর কথায়, ‘‘দায়িত্ব পাওয়ার পরে আমি যত জন ক্রিকেটারের সঙ্গে কাজ করেছি, তাদের মধ্যে সেরা বাবর। সেই জায়গা থেকে দেখতে গেলে হ্যারিস সোহেল ছিল সব চেয়ে দুর্বল। ও কোনও সময়ে ভা পারফর্ম করতে পারেনি।’’ পাক ক্রিকেট তা হলে এই সঙ্কট কি ভাবে কাটিয়ে উঠতে পারে? পাক বোর্ডকে গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ারের পরামর্শ, ‘‘ঘরোয়া ক্রিকেটকে মজবুত করতে হবে। পাল্টাতে হবে পরিকাঠামো। তা হলেই অনেক প্রতিভাধর ক্রিকেটার উঠে আসবে।’’ এ দিকে, পাক বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিবদ্ধ ১৪ ক্রিকেটার এবং বাইরে থেকে আসা ছয় ক্রিকেটারকে নিয়ে ১৭ দিনের বিশেষ প্রশিক্ষণ শিবির চালু করতে চলেছে পাক বোর্ড।