আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সে তাঁর গুরু ছিলেন লাসিথ মালিঙ্গা। সেই মালিঙ্গার ওয়ান ডে ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্তে স্বাভাবিক ভাবেই আবেগাপ্লুত যশপ্রীত বুমরা। বিশ্বের অন্যতম সেরা পেসার বলে দিয়েছেন, মালিঙ্গাকে তিনি সব সময় শ্রদ্ধা করে যাবেন।

জীবনের শেষ ওয়ান ডে ম্যাচে কলম্বোয় ৩৮ রানে তিন উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে শেষ করেন মালিঙ্গা। যে স্পেল দেখার পরে বুমরা টুইট করেন, ‘‘ক্লাসিক মালি স্পেল। ক্রিকেটের জন্য তুমি যা করেছ, তার জন্য ধন্যবাদ। তোমাকে সব সময় শ্রদ্ধা করেছি এবং করে যাব।’’ 

মালিঙ্গা এবং বুমরার মধ্যে অনেক মিলই খুঁজে পাওয়া যায়। দু’জনেরই বোলিং অ্যাকশন ব্যতিক্রমী। দু’জনেই ইয়র্কার দেওয়ার শিল্পী। আর মুম্বই ইন্ডিয়ান্সে দু’জনেই এক সঙ্গে খেলেছেন। যেখানে সিনিয়রের কাছ থেকে অনেক ব্যাপারেই পরামর্শ পেয়েছেন বুমরা। 

ওয়ান ডে ক্রিকেটে ৩৩৮ উইকেট নেওয়া মালিঙ্গা বিদায়বেলায় বলেছেন, ‘‘আমার মনে হয়েছে, এটাই ওয়ান ডে থেকে সরে দাঁড়ানোর সেরা সময়। আমি পনেরো বছর ধরে শ্রীলঙ্কার হয়ে খেলে চলেছি। এখনই তরুণদের জন্য জায়গা ছেড়ে দেওয়ার সেরা সময়। আমার সময় শেষ। এখন চলে যেতেই হবে।’’ 

মালিঙ্গার প্রতি ভালবাসা এবং শ্রদ্ধা জানিয়ে একের পর এক টুইট করেছেন প্রাক্তন ক্রিকেটারেরা। যাঁর মধ্যে আছেন সচিন তেন্ডুলকর থেকে রোহিত শর্মা। সচিন টুইট করেন, ‘‘ওয়ান ডে ক্রিকেটে দারুণ একটা কেরিয়ারের মালিক হওয়ার জন্য অভিনন্দন। ভবিষ্যতের জন্য আন্তরিক শুভেচ্ছা রইল।’’ মুম্বই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত টুইট করেন, ‘‘গত দশ বছরে যদি মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের সেরা ম্যাচ উইনারকে যদি বেছে নিতে হয়, তা হলে মালিঙ্গা নিঃসন্দেহে সবার উপরে থাকবে। চাপের মুহূর্তে আধিনায়ক হিসেবে মালিঙ্গা সব সময় আমাকে স্বস্তি দিয়েছে। ও কখনও আমাকে হতাশ করেনি।’’ 

ক্রিকেট ইতিহাসে মালিঙ্গাই হলেন একমাত্র বোলার যাঁর তিনটি হ্যাটট্রিক রয়েছে। টেস্ট থেকে আগেই অবসর নিয়েছিলেন তিনি। এ বার ওয়ান ডে অবসরের পরে মালিঙ্গাকে কুর্নিশ জানিয়ে যুবরাজ সিংহের টুইট, ‘‘দুরন্ত ক্রিকেট অধ্যায়ের অংশ হয়ে থাকলে তুমি, ইয়র্কার কিং। অভিনন্দন। তোমার মতো এক জন টো-ক্র্যাশার আর কখনও আসবে না। ভবিষ্যতের জন্য শুভেচ্ছা রইল।’’

দশ বছর ধরে যিনি মালিঙ্গার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে শ্রীলঙ্কার হয়ে লড়াই করেছেন, সেই মাহেলা জয়বর্ধনে ইনস্টাগ্রামে তাঁর প্রাক্তন সতীর্থ সম্পর্কে লিখেছেন, ‘‘২০০২ সালে গলে যখন তোমাকে প্রথম দেখি, তুমি নেটে বল করছিলে। সেখান থেকে শেষ ওয়ান ডে ম্যাচ খেলা পর্যন্ত তুমি নিজের প্রতি সৎ ছিলে। চ্যাম্পিয়ন, সতীর্থ এবং দারুণ এক জন বন্ধু। শ্রীলঙ্কাকে তুমি গর্বিত করেছ। এখন প্রতিটা মুহূর্ত উপভোগ করো, মালি।’’