দক্ষিণ আফ্রিকার ডিরেক্টর পদে নিযুক্ত হলেন ইনোচ এনকিউয়ে। হাইভেল্ড লায়ন্সদের ৩৬ বছর বয়সি প্রাক্তন কোচ সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরে প্রোটিয়াদের ভারতীয় সফরে দলের দায়িত্বে থাকবেন। এনকিউয়ের কোচিংয়ে গত মরসুমে লায়ন্সরা চার দিনের ফ্র্যাঞ্চাইজি সিরিজ এবং ঘরোয়া টি টোয়েন্টি লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়। এছাড়াও এমজাঞ্জি সুপার লিগে চ্যাম্পিয়ন জজি স্টার্সদেরও কোচের পদে ছিলেন এনকিউয়ে। 

বিশ্বকাপের ব্যর্থতার পরে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট বোর্ড কোচ ওটিস গিবসন-সহ পুরো কোচিং স্টাফের সঙ্গে চুক্তি আর বাড়ায়নি। এর পরেই দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড কোচ এবং ম্যানেজার পদ পুরোদস্তুর তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এনকিউয়ের সঙ্গে দৌড়ে ছিলেন মার্ক বাউচার ও অ্যাশওয়েল প্রিন্স। কিন্তু, এনকিউ পিছনে ফেলে দেন বাউচার ও প্রিন্সকে।

প্রাক্তন দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান হার্শেল গিবস বোর্ডের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে। তিনি বলেন, ‘‘একটি মাত্র ভাল মরসুম কোনও কোচের যোগ্যতা বিচারের সঠিক মাপকাঠি হতে পারে না। দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলের কোচ হওয়ার জন্য এই পারফরম্যান্স যথেষ্ট নয়। মার্ক বাউচার বা অ্যাশওয়েল প্রিন্সের সঙ্গে ন্যায় বিচার করা হয়নি।’’ বাউচার এবং প্রিন্স যথাক্রমে টাইটান্স এবং কেপ কোবরা দলের কোচ ছিলেন।

আরও পড়ুন: অনির্দিষ্টকালের জন্য নির্বাসনে আফগান ‘ধোনি’  

আরও পড়ুন: দ্রাবিড়কে পাশে পেয়ে সম্মানিত, বলছেন বুমরা

চলতি মাসের শুরুতে দক্ষিণ আফ্রিকা-জাত প্রাক্তন ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যান কেভিন পিটারসেন টুইট করে জানান, এই কঠিন সময়ে একমাত্র মার্ক বাউচারই দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটের গৌরব পুনরুদ্ধার করতে পারে। দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডের এই সিদ্ধান্তে প্রোটিয়া সমর্থকরা যে সন্তুষ্ট নয়, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।