বুধবার বিকেলে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস বধের মহড়া শুরু করার আগেই চমকে গিয়েছিলেন ভারতীয় দলের ফুটবলাররা। আন্ধেরি স্পোর্টস কমপ্লেক্সের গ্যালারিতে বসে আছেন আই এম বিজয়ন!

ভারতীয় ফুটবলের সর্বকালের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকারকে দেখেই এগিয়ে যান রবিন সিংহ, বলবন্ত সিংহ-রা। অভিভূত বিজয়ন মুম্বই থেকে ফোনে আনন্দবাজারকে বললেন, ‘‘ভারতীয় দলের অধিকাংশ ফুটবলারই আমার খেলা দেখেনি। তা সত্ত্বেও ওরা যে ভাবে আমাকে সম্মান দিল, তাতে আমি মুগ্ধ।’’

কী পরামর্শ দিলেন রবিনদের?

ভারতীয় ফুটবলের পর্যবেক্ষক হিসেবেই মুম্বইয়ে গিয়েছেন বিজয়ন। তিনি বললেন, ‘‘মরিশাসের বিরুদ্ধে পুরো দলটাই খুব ভাল খেলেছে। রবিনদের বলেছি, সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস শক্তিশালী দল হলেও ওদের বিরুদ্ধে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে খেলতে হবে।’’ বিজয়ন অবশ্য কিছুটা চিন্তিত সুনীল ছেত্রী না থাকায়। বললেন, ‘‘এই ম্যাচটায় সুনীলের প্রয়োজন ছিল। কিন্তু এএফসি কাপ সেমিফাইনালের জন্য ওকে পাওয়া যাবে না। আশা করি, বাকিরা ওর অভাব পূরণ করবে।’’

আরও পড়ুন: ‘মোদী, বচ্চন স্যার খুব উদ্বুদ্ধ করেছেন’

বিজয়ন মুগ্ধ বদলে যাওয়া জাতীয় কোচ স্টিভন কনস্ট্যান্টাইনকে দেখেও। বললেন, ‘‘আমরা যখন খেলতাম, তখন স্টিভন ৩-৫-২ স্ট্র্যাটেজিতেই শুধু খেলাতেন। এখন কিন্তু পরিস্থিতি অনুযায়ী স্ট্র্যাটেজি পরিবর্তন করছেন।’’

মরিশাসকে হারিয়ে ভারত ত্রিদেশীয় আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে অভিযান শুরু করলেও আটকে গিয়েছে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস। মঙ্গলবার তারা ১-১ ড্র করেছে মরিশাসের বিরুদ্ধে। তা সত্ত্বেও স্টিভন উদ্বিগ্ন। তার অন্যতম কারণ, ছ’মাস আগে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের ফিফা র‌্যাঙ্কিং। এই মুহূর্তে ১২৫ নম্বরে উত্তর আমেরিকার এই দেশে। কিন্তু গত মার্চেই সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের ফিফা র‌্যাঙ্কিং ছিল ৭৩। স্টিভন বলেছেন, ‘‘মরিশাসের বিরুদ্ধে ম্যাচ অতীত। সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের বিরুদ্ধে আমরা নতুন ভাবে শুরু করতে চাই।’’ আর অধিনায়ক সন্দেশ ঝিঙ্গান বলেছেন,  ‘‘সুনীল থাকলে আরও ভাল হতো।’’ তবে সুনীল নেই বলে আফসোস করতে রাজি নন স্টিভন। প্রথম একাদশে খুব বেশি পরিবর্তনের পক্ষে নন ভারতীয় কোচ। তবে আগের ম্যাচে পরিবর্ত হিসেবে দুর্দান্ত খেলা বলবন্ত হয়তো শুরু করতে পারেন।

 

ত্রিদেশীয় আন্তর্জাতিক কাপ: ভারত বনাম সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস (রাত, ৮.০০ স্টার স্পোর্টস এইচডি ওয়ান চ্যানেলে)।