পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ওশেন থমাস চার উইকেট পেলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ শিবিরের আসল নায়ক সেই তিনিই। বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে ম্যাচে শর্ট বল করে সেই আন্দ্রে রাসেলই একা দুমড়ে দেন পাকিস্তান ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড। 

ম্যাচের পরে রাসেল বলে গেলেন, ‘‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে পাওয়ার হিটার হিসেবে আমাকে দর্শকরা চিনলেও, তাঁরা ভুলে যান আমি একজন পেসার।’’ সাত উইকেটে পাকিস্তানকে বিধ্বস্ত করার ম্যাচে তিন ওভার বল করে চার রানে দু’উইকেট নেন রাসেল। 

বিরক্তি সহকারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই অলরাউন্ডার আরও বলছেন, ‘‘মনে হয়, দর্শকরা আমার বোলিংকে খাটো করে দেখতেন এত দিন। আমাকে গত কয়েক বছরে কেউ কেউ মিডিয়াম পেসার বানিয়ে দিয়েছিলেন। যা দেখে আমার হিংসা হত। মাঠে বড় পর্দায় যখন আমার নামের পাশে মিডিয়াম পেসার লেখা হত, তখন মনে মনে বলতাম, তোমরা বলার কে? সত্যি খুব বিরক্ত লাগত।’’

রাসেল যোগ করেন, ‘‘শেষ পর্যন্ত ওদের আমি দেখিয়ে দিতে পেরেছি, আন্দ্রে রাসেলও ঘণ্টায় ৯০ মাইল বেগে বল করতে পারে। আশা করি, এ বার বোলার হিসেবে আন্দ্রে রাসেলকে যোগ্য সম্মান দেবেন ওঁরা। ট্রেন্ট ব্রিজে বাউন্সি পিচ দেখেই জোরে বল করার শক্তি ও প্রেরণা পেয়ে গিয়েছিলাম।’’

পাশাপাশি, এটাও রাসেল জানিয়ে দিয়েছেন, ৬ জুন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ম্যাচে নামার আগে তিনি পুরোপুরি ফিট হয়ে যাবেন। তাঁর কথায়, ‘‘হাঁটুর চোট নিয়ে দীর্ঘদিন খেলে যাচ্ছি। হাতে এখনও পাঁচ দিন সময় রয়েছে। তার মধ্যে ফিট হয়ে যাব।’’