শিখরহীন ভারত কিন্তু দুর্বল নয়, বলছেন সৌরভ
বুধবার কলকাতার এক পাঁচতারা হোটেলে সাংবাদিকদের সৌরভ বলেন, ‘‘ইংল্যান্ডে থাকাকালীনই বুঝেছিলাম যে শিখরের চোট গুরুতর। ওর ছিটকে যাওয়ার খবরে বিস্মিত নই। ভারতীয় দলের কাছে এটা অবশ্যই বড় ধাক্কা।’’
Dhawan

চোটের জন্য ছিটকে গেলেন শিখর ধওয়ন।—ছবি এপি।

শিখর ধওয়নহীন ভারতীয় দলের সামনে বিশ্বকাপ জেতার বড় চ্যালেঞ্জ। ভারতীয় ওপেনারের পাশাপাশি ভুবনেশ্বর কুমারের চোট সারতেও বেশ সময় লাগবে। ভুবি যদিও বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাননি। কিন্তু বুধবার সরকারি ভাবে শিখরের ছিটকে যাওয়ার কথা জানিয়েছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। পরিবর্ত ঋষভ পন্থ। প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় মনে করছেন, শিখরহীন ভারত কিন্তু একেবারেই দুর্বল নয়।

বুধবার কলকাতার এক পাঁচতারা হোটেলে সাংবাদিকদের সৌরভ বলেন, ‘‘ইংল্যান্ডে থাকাকালীনই বুঝেছিলাম যে শিখরের চোট গুরুতর। ওর ছিটকে যাওয়ার খবরে বিস্মিত নই। ভারতীয় দলের কাছে এটা অবশ্যই বড় ধাক্কা।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘কিন্তু এই শিখরহীন ভারতীয় দলই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানে জিতেছে। তাই ওদের দুর্বল হিসেবে দেখা যাবে না।’’ 

তবে পরিবর্ত হিসেবে ঋষভ পন্থকে পছন্দ সৌরভের। বলছিলেন, ‘‘ঋষভ সুযোগ পাওয়ায় অবাক হইনি। ওর সুযোগ পাওয়াই প্রাপ্য। ইংল্যান্ডে খেলার অভিজ্ঞতা কাজে লাগবে।’’ গত রবিবার ম্যাঞ্চেস্টারে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভুবনেশ্বর চোট পেয়ে বেরিয়ে যাওয়ার পরে ওভার শেষ করতে এসে প্রথম বলেই ইমাম উল হককে ফিরিয়ে দেন বিজয় শঙ্কর। ভারতীয় পেসারের যোগ্য পরিবর্ত হিসেবে কাকে দেখছেন? সৌরভের উত্তর, ‘‘সেটা আমি ঠিক করার কে! বিরাট তো রয়েইছে। কিন্তু পাকিস্তানের বিরুদ্ধে শঙ্কর খুব ভাল বল করেছে। শেষ মরসুমে ওর পারফরম্যান্স অত্যন্ত ভাল ছিল।’’ কিন্তু বিশ্বকাপের মধ্যে প্রথম একাদশের দু’জন চোট পেয়ে গিয়েছেন। সেটা  সামলে ওঠা কতটা কঠিন? ‘‘চোট আঘাত খেলতে গেলে লাগবেই। পরিবর্ত হিসেবে যারা আসছে, তাদের অভাব পূরণ করার দায়িত্ব নিতে হবে। বিজয় শঙ্কর সেটা পেরেছে। দেখা যাক ঋষভ কী করে।’’

২০০৩ বিশ্বকাপের সময় নেদারল্যান্ডসের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে কোনও রকমে জিতেছিল ভারত। পরের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১২৫ রানে অলআউট হয়ে যায়। সেখান থেকে টানা ৯টি ম্যাচ জিতে ফাইনালে ওঠে। কিন্তু চলতি বিশ্বকাপে বিরাট কোহালির দল এখনও হারেনি। এটা কি আদৌ পার্থক্য গড়তে পারে? সৌরভের উত্তর, ‘‘এখনও পর্যন্ত ভারতকেই সব চেয়ে শক্তিশালী দেখাচ্ছে। তার পরেই রয়েছে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। সেমিফাইনাল পর্যন্ত আশা করছি কোনও অসুবিধা হবে না। আমরা বিশ্বকাপে দুরন্ত পারফর্ম করে ফাইনালে হেরে গিয়েছি। চাইব, বিরাটরা যেন ফাইনাল জিতে ফেরে।’’

চার ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে যাওয়ায় বিশ্বকাপ আয়োজকদের বিরুদ্ধে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। বিতর্কও হয়েছে। ব্রায়ান লারা, কেভিন পিটারসেনরা ইডেনের ছবি দেখিয়ে বলেছিলেন, ‘‘পুরো মাঠ আচ্ছদন দিয়ে ঢাকতে পারলে অসুবিধা হবে না।’’ সৌরভকে সে বিষয়ে পরামর্শও চাওয়া হয়েছিল। তিনি কী বললেন? ‘‘কোনও সমালোচনা করিনি। বলেছি পুরো মাঠ আচ্ছাদন দিয়ে ঢাকা যেতেই পারে। তাতে খুব একটা বেশি খরচাও নেই।’’

ম্যাচের
Live
স্কোর