কোহালি নির্ভরতায় বিরক্ত তেন্ডুলকর
সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে যাওয়ার পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর টুইট, ‘‘প্রত্যাশা অনুযায়ী ফল হয়নি ঠিকই। কিন্তু ভারতের লড়াকু মনোভাব দেখে আমি মুগ্ধ। প্রতিযোগিতা জুড়ে অসাধারণ খেলেছে ভারত। হার-জিত তো খেলারই অঙ্গ।’’
VK

হতাশা: আউট হয়ে কোহালি ব্যাট ছুড়ে দিলেন শূন্যে। বুধবার ম্যাঞ্চেস্টারে। এপি

স্বপ্নভঙ্গ। লর্ডসের ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে কাপ তোলা হল না ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালির। বুধবার সেমিফাইনালে নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১৮ রানে হেরে বিদায় ভারতের। 

যার পরে সচিন তেন্ডুলকর বলেছেন, ‘‘সত্যিই হতাশ। ২৪০ রান অবশ্যই তাড়া করে জেতা উচিত ছিল ভারতের। এটা কোনও কঠিন লক্ষ্য নয়।’’ হারের কারণ খুঁজতে গিয়ে সচিন বলেছেন, ‘‘কিন্তু প্রত্যেক ম্যাচে ভাল শুরু আশা করা উচিত নয়। রোহিত শর্মা অথবা বিরাট কোহালির এক দিন খারাপ যেতেই পারে। সব সময় ওরাই ম্যাচ শেষ করবে, তা হবে কেন।’’ ধোনি প্রসঙ্গেও একই কথা বলেন সচিন। ‘‘সব সময় এটাও ভাবা ঠিক নয়, ধোনি এসে ম্যাচ শেষ করে দেবে। বাকিদেরও দায়িত্ব নিতে হবে।’’

সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে যাওয়ার পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর টুইট, ‘‘প্রত্যাশা অনুযায়ী ফল হয়নি ঠিকই। কিন্তু ভারতের লড়াকু মনোভাব দেখে আমি মুগ্ধ। প্রতিযোগিতা জুড়ে অসাধারণ খেলেছে ভারত। হার-জিত তো খেলারই অঙ্গ।’’ রাহুল গাঁধী লেখেন, ‘‘অনেকেই হয়তো হতাশ। কিন্তু বিশ্বকাপে ভারত যে ভাবে খেলেছে তার প্রশংসা না করে পারছি না। তবে নিউজ়িল্যান্ডকে 

অনেক অভিনন্দন।’’ কেভিন পিটারসেন মনে করেন, হার্দিক পাণ্ড্য ও ঋষভ পন্থ উইকেট ছুড়ে দিয়ে আসার কারণেই ব্যর্থ ভারত। তিনি বলেছেন, ‘‘এই উইকেটে থিতু হতে পারছিল না ভারতীয় টপ-অর্ডার। সেখানে হার্দিক ও পন্থ কঠিন কাজটি করে। কিন্তু হঠাৎ ওদের কী হল? এত তাড়া কীসের? ওদের হাতে সুযোগ ছিল ভারতকে ম্যাচ উপহার দেওয়ার।’’

ম্যাচের
Live
স্কোর