বিশ্বকাপে এখনও পর্যন্ত ছ’ বার মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও পাকিস্তান। প্রতিবারই মাথা নীচু করে মাঠ ছাড়তে হয়েছে ইমরান খানের দেশকে।

এ বার ইতিহাসের চাকা ঘুরবে বলে মনে করছেন পাকিস্তানের চিফ সিলেকটর ইনজামাম উল হক। ক্রিকেট পাকিস্তানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইনজি বলেছেন, ‘‘ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের গুরুত্ব মানুষের কাছে অন্যরকমের। অনেকেই বলতে শুরু করে দিয়েছেন, বিশ্বকাপ না জিতলেও চলবে। ভারতকে হারাতে পারলেই আমরা খুশি। আমি আশাবাদী এ বার ভারতকে আমরা হারাতে পারব। বিশ্বকাপে ভারতের কাছে হারের ইতিহাস এ বারই বদলাতে পারব বলে আশা রাখি।’’

ইনজামাম বেশ ভালই জানেন ভারত-পাক ম্যাচের গুরুত্ব। নিজেও একসময়ে খেলেছেন এই ম্যাচ। এ বার তাঁর ভূমিকা বদলে গিয়েছে। তিনি এখন দেশের মুখ্য নির্বাচক। জাতীয় দল গঠন করা কতটা কঠিন, তা এখন তিনি বেশ বুঝতে পারছেন। ইনজামাম বলেন, ‘‘মানুষ মনে করে ১৪-১৫ জন ক্রিকেটারের নাম লিখে ফেললেই একটা স্কোয়াড তৈরি করে ফেলা যায়। কিন্তু ব্যাপারটা অতটা সহজ নয়। প্রচুর চাপ থাকে।’’

আরও খবর: ভুবনেশ্বর নয়, বিশ্বকাপের প্রথম এগারোয় সৌরভের পছন্দ ইনি

প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে হারতে হয়েছে পাকিস্তানকে। তার আগে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজেও পর্যুদস্ত হয়েছে ১৯৯২ সালের চ্যাম্পিয়নরা। আফগানিস্তানের কাছে হার প্রসঙ্গে ইনজি বলছেন, ‘‘বিশ্বকাপে কোনও দলকেই হাল্কা ভাবে নেওয়াটা ঠিক হবে না। আফগানিস্তানের মতো দল যে কোনও বড় দলকে হারানোর ক্ষমতা ধরে।’’

১৯৯২ সালের বিশ্বকাপে ইনজির ব্যাটের জোরেই ফাইনালে পৌঁছেছিল পাকিস্তান। ফাইনালেও শেষের দিকে ইনজামাম দ্রুত লয়ে রান তুলেছিলেন। সে বার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পাকিস্তান। এ বার ইনজি বিশ্বকাপের দল গড়েছেন। সরফরাজরা কি তাঁর আস্থার মর্যাদা দিতে পারবেন?