ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি ও তাঁর দলের এক নম্বর বোলার যশপ্রীত বুমরাকে নিয়ে উচ্ছ্বসিত কিংবদন্তি ব্রায়ান লারা। 

শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে লারা বলেন, ‘‘বিরাট কোহালি মানুষ নয়। যন্ত্র।’’ আর যশপ্রীত বুমরা সম্পর্কে লারার মূল্যায়ন, ‘‘বুমরার বিরুদ্ধে খেললে কখনও ওকে আক্রমণের রাস্তায় যেতাম না। বরং সিঙ্গলস নিয়ে স্কোরবোর্ডকে সচল রেখে ওকে পাল্টা চাপে ফেলতাম।’’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই প্রাক্তন ক্রিকেটার বিরাট সম্পর্কে আরও বলেন, ‘‘বিরাট কোহলি হল রান তোলার যন্ত্র। যে ক্রিকেট খেলাটাকেই অনেকটা বদলে দিয়েছে। নিয়ে গিয়েছে অন্য উচ্চতায়। লক্ষ্য করে দেখবেন, আশি বা নব্বইয়ের দশকে যে ক্রিকেট খেলাটার সঙ্গে রপ্ত ছিলাম আমরা, বিরাটের ক্রিকেট তার চেয়ে সম্পূর্ণ অন্য রকমের। ফিটনেস সব সময়েই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু সেটা এই সময়ে যে রকম গুরুত্ব দিয়ে দেখে বিরাট, তা আমাদের সময়ে ছিল না। এই ফিটনেস কাজে লাগিয়েই নিজের সাফল্যকে দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ভারত অধিনায়ক।’’

এই নিয়ে তৃতীয় বিশ্বকাপ খেলতে চলেছেন কোহালি। তবে এ বারই প্রথম বিশ্বকাপে তিনি নামবেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক হিসেবে। সেই কোহালির প্রশংসা করতে গিয়ে লারা আরও বলেন, ‘‘প্রায় প্রতি ম্যাচেই দেখি বিরাট মাঠে নেমে রান করে আসছে। সচিন তেন্ডুলকর আমার কাছে সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। তবে সচিনের সঙ্গে আমি বিরাটের তুলনা করছি না। কোহালি হল এক বিশেষ প্রতিভা। উঠতি তরুণ ক্রিকেটারদের কাছে বিরাট সব সময়েই সেরা আদর্শ।’’

কোহালির পাশাপাশি, এ দিন ভারতীয় বোলিংয়েরও প্রশংসা করেছেন লারা। ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটের অন্যতম কিংবদন্তি এ প্রসঙ্গে ভারতীয় বোলিংয়ের প্রধান অস্ত্র বুমরাকে সামলানোর দাওয়াই দিয়েছেন। তাঁর কথায়, ‘‘যদি আমি বুমরার বিরুদ্ধে কখনও খেলতাম, তা হলে স্ট্রাইক বদল করতাম। খুচরো রান নিয়ে স্কোরবোর্ডকে সচল রাখতাম। এতে চাপ বাড়ত বুমরার উপর।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘দারুণ বোলার বুমরা। অদ্ভুত ওর বোলিং অ্যাকশনও। এই মুহূর্তে ভারতের সেরা বোলার বুমরাই। বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানরা ওকে দেখে না খেললে বিপদে পড়বে।’’

লারা আরও বলেন, ‘‘ব্যাটসম্যানদের উচিত বুমরাকে আক্রমণ না করে ওর ছ’টি বলে ছ’টি সিঙ্গলস নিয়ে স্কোরবোর্ডকে সচল রাখা। কারণ, বুমরার মতো বোলারদের আক্রমণ সঠিক পথ নয়।  টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যেমন সিঙ্গলস নেওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে তেমনই ওয়ান ডে ক্রিকেটে সিঙ্গলস নেওয়ার জন্য অনেক বল থাকে। এ ভাবেই আগে মুরলিধরন ও সুনীল নারাইনের বিরুদ্ধে খেলত ব্যাটসম্যানরা।’’ কেন বুমরার বিরুদ্ধে আক্রমণে যাওয়া ঠিক রাস্তা নয়, তার ব্যাখ্যা দিয়ে লারা বলেছেন, ‘‘যদি কোনও দিন ওর খারাপ যায়, তা হলে ব্যাটসম্যান তার সুযোগ নিতেই পারে। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই বুমরার দিনটাই ভাল যায়। তখন কিন্তু ব্যাটসম্যানরাই ওর বিরুদ্ধে খেলতে গিয়ে সমস্যায় পড়ে।’’