সই বিতর্কে জড়িয়ে পড়া জবি জাস্টিনকে শনিবার ডেকে পাঠাল আইএফএ। ডাকা হচ্ছে ইস্টবেঙ্গলকেও। ফেডারেশনের নির্দেশে তদন্ত করতে নেমে প্রথমে দু’পক্ষের বক্তব্য শুনতে চান রাজ্য ফুটবল সংস্থার কর্তারা। সচিব উৎপল গঙ্গোপাধ্যায় সোমবার বললেন, ‘‘জবিকে ফোন করেছিলাম। ও ফোন ধরছে না। আমরা ই-মেল করে ওকে এবং ইস্টবেঙ্গলকে চিঠি পাঠিয়ে দিচ্ছি শনিবারের সভায় থাকার জন্য।’’ 

আই লিগে দেশের সেরা ভারতীয় স্ট্রাইকার দলবদল করার পর তাঁকে অনুশীলনে আসতে নিষেধ করে দিয়েছেন লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচ আলেসান্দ্রো মেনেন্দেস। ফলে সোমবারও অনুশীলনে দেখা যায়নি জবি জাস্টিনকে।

 এ দিন ইস্টবেঙ্গলের কর্মসমিতির সভায় ফের নতুন মরসুমের দল গঠন নিয়ে বিনিয়োগকারীদের ঢিলেঢালা মনোভাব নিয়ে সরব হলেন সদস্যরা। সিদ্ধান্ত নেওয়া হল, কলকাতা লিগের দল গঠন ও আইএসএলে খেলা নিয়ে বিনিয়োগকারীদের কাছে যত তাড়াতাড়ি বোর্ডের বৈঠক ডাকার জন্য চিঠি পাঠানো হবে। ক্লাবের এক শীর্ষ কর্তা বললেন, ‘‘সদস্য-সমর্থকরা পরের মরসুমের দল নিয়ে প্রচণ্ড উদ্বিগ্ন। সে জন্য আমরা বিনিয়োগকারী সংস্থার চেয়ারম্যানের সঙ্গে দ্রুত দল গঠন নিয়ে আলোচনায় বসতে চাই।’’ এ দিনের সভায় ঠিক হয়, পুড়ে যাওয়া ময়দানের উয়াড়ি ক্লাবের তাঁবুর পুনর্নির্মাণে সব রকম সাহায্য 

করবে ইস্টবেঙ্গল।     

বন্ধ হয়ে গেল মোহনবাগান অনুশীলন: সুপার কাপ থেকে সবার আগে নাম তুলে নিয়েছিল মোহনবাগান। ঠিক ছিল, কাশ্মীরে সরকারি ব্যবস্থাপনায় একটি প্রদর্শনী ম্যাচ খেলবেন সনি নর্দেরা। কিন্তু শ্রীনগরের টিআরসি স্টেডিয়ামে ফ্লাড লাইট তৈরি না হওয়ায় এবং লোকসভা নির্বাচনের জন্য  বাতিল হয়ে গেল সেই প্রদর্শনী ম্যাচ। সঙ্গে সঙ্গেই অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হল দিপান্দা ডিকাদের অনুশীলন। ফলে শেষ হয়ে গেল মরসুম।