• গৌতম ভট্টাচার্য
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ব্যাঙ্কে পাঁচ লাখ আছে? ধোনি-সহ সিএসকে কিনে ফেলুন

N Srinivasan

হাতে খরচ করার মতো পাঁচ লাখ টাকা থাকলে নানান বিকল্প আপনার হাতে খোলা। গাড়ি কিনতে পারেন। দুই গোলার্ধে ঘুরপাক খেতে পারেন। এমনকী একটা আইপিএল টিমও কিনে ফেলতে পারেন।

আর কপাল ভাল থাকলে সেই টিমটা হয়ে যেতে পারে ধোনি-সহ চেন্নাই সুপার কিঙ্গস। পাঁচ লাখ টাকা খরচ করলে আস্ত সিএসকে টিমটা কিনে ফেলা সম্ভব!
এটা অবশ্যই সিএসকেধিপতি নারায়ণস্বামী শ্রীনিবাসনের সৌজন্যে।
অত্যাশ্চর্য এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে নবগঠিত আইপিএল কাউন্সিলের প্রথম বৈঠক থেকে। যেখানে আইপিএল মহাকর্তা সুন্দর রমন সদস্যদের সিএসকে-র শেয়ার ট্রান্সফারের খুঁটিনাটি জানিয়ে বলেন ওদের বিক্রয়মূল্য হল পাঁচ লাখ টাকা। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনেই তারা শেয়ার হস্তান্তর করবে। আর বোর্ডের নিয়ম অনুযায়ী শতকরা পাঁচ শতাংশ টাকা দেবে বোর্ডকে। অর্থাৎ পঁচিশ হাজার টাকা দেবে বোর্ডকে।
সিএসকে-র ভ্যালুয়েশন পাঁচ লাখ টাকা এমন তথ্য শুনে এবং সেই মর্মে লিখিত কাগজ পেয়ে সদস্যরা প্রথমে হকচকিয়ে যান। গত বছরই একটা বেসরকারি এজেন্সি রিসার্চ করে বার করেছিল ব্র্যান্ড হিসেবে তার মূল্য এখন ৪৫০ কোটি টাকার কিছু বেশি। আইপিএলের শেষ যে দল বিক্রি হয় সেই পুণে ওয়ারিয়র্স কেনা হয়েছিল ১৭০০ কোটি টাকায়। কাজেই ক্রিকেট বাণিজ্য মহলের ধারণা, অন্তত হাজার কোটি মূল্যায়ন হওয়া উচিত এখনকার সিএসকে-র।
সেক্ষেত্রে ভারতীয় বোর্ডের প্রাপ্য ২৫ হাজার টাকা নয় ৫০ কোটি টাকা!
শ্রীনির আমলের বোর্ড থাকলে এই দরেই অবলীলাক্রমে শেয়ার ট্রান্সফার হয়ে যেত। শেষ কাউন্সিল বৈঠকে প্রাক্তন আইপিএল চেয়ারম্যান রঞ্জীব বিসওয়াল এই নিয়ে কোনও আপত্তিও তোলেননি। শুধু পূর্বাঞ্চলের এক সদস্য জানতে চান, পাঁচ লাখ টাকা সিএসকে-র দাম? সব কাগজপত্র ঠিক আছে তো? তাঁকে আশ্বস্ত করা হয়, সব ঠিক আছে। এর পর প্রস্তাবটাই গ্রহণ করে মিনিটস কনফার্মেশনের জন্য পাঠানো হয়েছিল নতুন কাউন্সিলের কাছে। সদস্যরা চাইলে এই দরেই চেন্নাই সুপার কিঙ্গস ক্রিকেট লিমিটেড থেকে ইন্ডিয়া সিমেন্টস লিমিটেডে শেয়ার ট্রান্সফার পদ্ধতি সম্পন্ন হয়ে যেত।
কিন্তু প্রতিবাদ করেন প্রাক্তন কোষাধ্যক্ষ অজয় শিরকে। তিনি বলতে থাকেন, এ তো কেলেঙ্কারি! বোর্ড অনেক টাকা ক্ষতি করবে এটা গৃহীত হয়ে গেলে। শিরকেকে সমর্থন করেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। বৈঠকে উপস্থিত দুই ক্রিকেটার রবি শাস্ত্রী এবং সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় কিছু বলেননি। কিন্তু বাকিদের তীব্র আপত্তিতে ঠিক হয়, রোববার কলকাতায় ভারতীয় বোর্ডের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে এই প্রসঙ্গ তোলা হবে।

সবিস্তার দেখতে ক্লিক করুন।

আপাতত বলা যায় এই নিয়ে প্রসঙ্গ শুধু উঠবেই না, ঝড় উঠবে। সিএসকে-র দাম সরকারি ভাবে মাত্র পাঁচ লাখ দেখানো হয়েছে খবর ভারতীয় ক্রিকেট মহলে ছড়িয়ে পড়ার পর এমনই বিস্ময় সৃষ্টি হয় যে বিষ্যুদবার সচিন তেন্ডুলকরের বিয়াল্লিশতম জন্মদিন ঘিরে আগ্রহ তার নীচে প্লাবিত।

কেন এত বড় ভুল করলেন শ্রীনিবাসন? বোর্ডকে টাকা কম দেওয়াও যদি উদ্দেশ্য থাকে, তা হলে এত কম? হাজার কোটির পণ্য পাঁচ লাখ! প্রবল শ্রীনি সমর্থক এক বোর্ড কর্তা বললেন, মানুষের সময় যখন খারাপ যায় তখন সে সবেতে ভুল করে। এটা তারই নমুনা। কারও কারও মনে হচ্ছে ভুলটা একেবারেই ইচ্ছাকৃত। শেয়ারের দর এত কমিয়ে রাখার উদ্দেশ্য টাকাটা বাঁচাতে চাওয়া। এক তো বোর্ডকে কম টাকা দিতে হল। দুই, টাকাটা কম দেখালে পরে পরিস্থিতির উন্নতি হলে শেয়ারগুলো ফের কিনে নিতে সুবিধে। বেশি টাকা খরচা করতে হবে না।

শ্রীনির লক্ষ্য যাই হোক রোববারের কলকাতা বৈঠক যে তাঁর এবং তাঁর জমানার নানা আর্থিক অসঙ্গতি নিয়ে সরগরম থাকবে বোঝাই যাচ্ছে। পরিস্থিতি এমন অগ্নিগর্ভ যে তাঁর বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব আনা হলেও আশ্চর্যের কিছু নেই।    

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন