কথায় বলে, যার শেষ ভাল, তার সব ভাল। রবিবার ভারতীয় ক্রিকেট দলের শেষটা ভাল হবে কি না, তার উত্তর আগে থেকে আন্দাজ করাটা কিন্তু মোটেই সোজা হবে না। 

নভেম্বর থেকে বিদেশ সফরে এ পর্যন্ত কোনও সিরিজে হারেনি ভারত। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজ ড্র হয়। এ ছাড়া অন্যান্য সব সিরিজই ভারত শেষ করে জয় দিয়ে। নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টিতে কি সেই জয়ের ধারা ধরে রাখা যাবে? রবিবার শেষ ম্যাচে ভারত জিতলে নিউজিল্যান্ড থেকে প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতে ইতিহাস গড়বে। সিরিজ আপাতত ১-১। 

শুক্রবার দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ে ফেরার পরে ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা বলেছিলেন, ‘‘নিউজ়িল্যান্ডকে সহজ ভাবে নেওয়ার প্রশ্নই নেই। ওরা ভাল দল। শেষ ম্যাচে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে।’’ রোহিত যে খুব একটা ভুল বলেননি, তা বোঝানোর জন্য মনে করিয়ে দেওয়া যেতে পারে, কয়েক দিন আগে এই হ্যামিল্টনে ওয়ান ডে ম্যাচে ভারত ৯২ রানে অলআউট হয়। নিউজ়িল্যান্ডের কাছে আট উইকেটে হারে। সুইংয়ের জাদুতে ভারতকে ভাঙেন ট্রেন্ট বোল্ট। নেন পাঁচ উইকেট।

আরও পড়ুন: চহালদের সাফল্য নিয়ে নিশ্চিত নন মুরলী

তবে এই মাঠেই আবার গত বছর ফেব্রুয়ারিতে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টিতে কলিন মুনরো ১৮ বলে হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন। এ বারে হ্যামিল্টন কি নিয়ে অপেক্ষা করে আছে ভারতের জন্য? ওয়াকিবহাল মহল বলছে, পিচ হয়তো নিষ্প্রাণই থাকবে, আউটফিল্ড গতিময়। কিন্তু জোরালো হাওয়া থাকায় বল সুইং করতে পারে। বোল্ট দলে নেই, সে ক্ষেত্রে টিম সাউদি বা নতুন মুখ ব্লেয়ার টিকনার কিছু করতে পারেন কি না, সেটাই দেখার।

আরও পড়ুন: উপভোগ করার বার্তা লায়নের   

শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে রান পেয়েছেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা, ঋষভ পন্থরা। মহেন্দ্র সিংহ ধোনিকেও ছন্দে দেখিয়েছে। ওই ম্যাচের পরে তরুণ ভারতীয় পেসার খলিল আহমেদ বলেন, ‘‘হ্যামিল্টনে আমাদের খেলার অভিজ্ঞতা আছে। তাই উইকেট দেখে চমকে যাওয়ার মতো কিছু আছে বলে মনে হয় না। তা ছাড়া দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি জিতে যে আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছি আমরা, সেটাও শেষ ম্যাচে কাজে লাগবে আমাদের।’’ 

প্রথম ম্যাচে হারলেও দ্বিতীয় ম্যাচে একই দল নিয়ে নেমেছিলেন রোহিত। জয়ী দল না ভেঙে সেই একই দল নিয়ে রবিবার নামতে পারেন তাঁরা। তবে যুজবেন্দ্র চহালকে বিশ্রাম দিয়ে তাঁর জায়গায় কুলদীপ যাদবকে দলে রাখা হয় কি না, সেটাই দেখার। ওয়ান ডে সিরিজে একটিও উইকেট না পাওয়ায় হয়তো বিজয় শঙ্কর টি-টোয়েন্টি সিরিজে এখনও বল করার সুযোগ পাননি। তাঁকে শেষ ম্যাচে বোলিং করিয়ে পরখ করে নিতে পারেন অধিনায়ক রোহিত।  

উইলিয়ামসন গত ম্যাচে হারার পরে বলেছিলেন, ‘‘ওয়েলিংটনে (প্রথম ম্যাচে) যে রকম খেলেছিলাম, সে রকম বারবার সম্ভব নয়। তবে দলের সকলে যদি চাপমুক্ত হয়ে খেলে, তা হলে সেই পারফরম্যান্সের ধারেকাছে যাওয়া যেতেই পারে। সিরিজটা যখন ১-১ হয়ে আছে আর শেষ ম্যাচটা যখন রবিবারে, তখন আশা করব আমাদের প্রচুর সমর্থক আসবেন ম্যাচ দেখতে। সেরাটা বার করে আনার জন্য দর্শকদের সমর্থন 

খুব দরকার।’’

সমর্থকদের কাছ থেকে যেখানে লড়াইয়ের রসদ খুঁজছেন নিউজ়িল্যান্ড অধিনায়ক, সেখানে নিজেদের উপর আস্থা রাখাটাই ভারতীয় শিবিরের মূলমন্ত্র। শেষ পর্যন্ত কাদের জয় হবে, সেটাই এখন কোটি টাকার প্রশ্ন।