ভারতের হয়ে শেষ সাত টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অর্ধ-শতরানের ইনিংস আসেনি তাঁর ব্যাট থেকে। শ্রীলঙ্কার মাটিতে চলতি নিদাহাস ট্রফিতেও তিন ম্যাচে তাঁর মোট রান ছিল ২৮ (০, ১৭, ১১)। সমালোচনা চলছিল ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মার ব্যাটে এই রান-খরা নিয়ে।

শেষ পর্যন্ত ভারতীয় ক্রিকেটের ‘হিটম্যান’ স্বমহিমায় ফিরলেন বুধবার বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। ৬১ বলে করলেন ৮৯ রান। বিদেশের মাটিতে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে রোহিতের এই রান ভারতীয় অধিনায়কদের মধ্যে সর্বোচ্চ। যার মধ্যে রয়েছে পাঁচটি চার ও পাঁচটি ছক্কা। ফর্মে ফিরতে তিনি যে মরিয়া ছিলেন এ দিন ম্যাচের পরে তা বলেও যান রোহিত। তাঁর কথায়, ‘‘রানে ফেরা খুব দরকার ছিল। শেষ পর্যন্ত ব্যাটে রান পাওয়ায় আমি খুশি।’’

এ দিন রানে ফেরার সঙ্গে সঙ্গে নতুন রেকর্ডও গড়ে ফেললেন রোহিত। এত দিন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ভারতীয়দের মধ্যে সব চেয়ে বেশি ছক্কা মারার রেকর্ড ছিল যুবরাজ সিংহের। ৭৪ টি। এ দিন তা টপকে গেলেন রোহিত (৭৫ টি)। একই সঙ্গে দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে উঠে শার্দূল ঠাকুর, ওয়াশিংটন সুন্দর-দের মতো তরুণ ক্রিকেটারদের সাহসী মনোভাবের প্রশংসাও করছেন ভারত অধিনায়ক রোহিত। বিশেষ করে বললেন এ দিন ২২ রানে তিন উইকেট নেওয়া ওয়াশিংটন সুন্দরের কথা। রোহিত বলেন, ‘‘ওয়াশিংটনের ম্যাজিক স্পেলটা জিততে সাহায্য করেছে ভারতকে। ছেলেটার বড় গুণ হল সাহস। গত শ্রীলঙ্কা সিরিজ থেকেই পারফর্ম করে যাচ্ছে ওয়াশিংটন। ’’

ভারতীয় ইনিংসে ওপেন করতে এসে এ দিন শুরুটা বেশ ধীরেই করেছিলেন রোহিত। কিন্তু ৪২ বল খেলে নিজের ত্রয়োদশ অর্ধশতরানের পরেই ফের মারমুখী মেজাজে ব্যাট করে ৮৯ রান করে যান তিনি। যে প্রসঙ্গে ম্যাচের শেষে ভারত অধিনায়ক বলেন, ‘‘পিচে বল পড়ে থমকে আসছিল। তাই শুরুতে ধরে খেলে পরের দিকে বড় শট মারার চেষ্টা করেছি। জানতাম, ক্রিজে থিতু হয়ে গেলে পরের দিকে রান আসবে। রায়না এবং আমার জুটির লক্ষ্যই ছিল সেটা।’’