মহেন্দ্র সিংহ ধোনি ছাড়া মাঠে নেমে বড় ধাক্কা খেতে হয়েছে চেন্নাই সুপার কিংসকে। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কাছে হারতে হয়েছে ছয় উইকেটে। যে হারের পরে সিএসকে-র কোচ স্টিভন ফ্লেমিং স্বীকার করে নিয়েছেন, তাঁদের অনেক খুঁত-ত্রুটি সামনে চলে এসেছে।

সিএসকে ভক্তদের মধ্যে এখন সব চেয়ে আগ্রহ একটি প্রশ্নকে ঘিরে। ধোনি আবার কবে মাঠে নামতে পারবেন? 

সিএসকে কোচের কথায় পরিষ্কার, ধোনিকে নিয়ে সতর্ক থাকছেন তাঁরা। অধিনায়ককে নিয়ে অহেতুক কোনও ঝুঁকি নিতে রাজি নয় চেন্নাই ম্যানেজমেন্ট। ধোনিকে বিশ্রাম দেওয়া প্রসঙ্গে ফ্লেমিং বলেছেন, ‘‘কলকাতার বিরুদ্ধে ম্যাচে ধোনির কোমরে সমস্যা হচ্ছিল। তাই আমরা কোনও ঝুঁকি নিতে চাইনি। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবেই ধোনিকে হায়দরাবাদ ম্যাচে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল। আমরা এখন মরসুমের মাঝপথে চলে এসেছি। দেখতে হবে, যাতে পুরো মরসুমটা ঠিকঠাক খেলতে পারে ধোনি।’’ ফ্লেমিং মেনে নিচ্ছেন, ধোনিকে দেখার জন্য কতটা আগ্রহ থাকে মানুষের মধ্যে। ‘‘যে মাঠেই ধোনি যাক না কেন, সবাই ওকে খেলতে দেখতে চায়। কিন্তু আমাদের ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে হয়।’’ তবে গত কাল ম্যাচের পরে কিছুটা আশার কথা শুনিয়ে গিয়েছেন হায়দরাবাদ ম্যাচের অধিনায়ক সুরেশ রায়না। তিনি বলেছেন, ‘‘ধোনি এখন অনেক সুস্থ। হয়তো পরের 

ম্যাচেই খেলবে।’’ 

নয়টি ম্যাচের মধ্যে সাতটিতে জিতে লিগ টেবিলের শীর্ষে এখনও সিএসকে। কিন্তু গত কাল হায়দরাবাদের কাছে হারটা যে বড় ধাক্কা, তা মানছেন ফ্লেমিং। তিনি বলেছেন, ‘‘অনেক দিন বাদে আমাদের অনেক খুঁত, ত্রুটি এই ভাবে সামনে চলে এসেছে। এ বার দেখার, ক্রিকেটারেরা কী ভাবে এই হারের ধাক্কা সামলে ওঠে।’’ ফ্লেমিং জানাচ্ছেন, তাঁরা অতিরিক্ত বিশ্লেষণে বিশ্বাস করেন না। ‘‘আমরা হার নিয়ে বেশি কাটাছেঁড়া করতে ভালবাসি না। আমরা কিছু কিছু জায়গা বেছে নিই, যেখানে উন্নতি করা দরকার। তার পরে সে সব জায়গায় নজর দিই। আমরা আটটার মধ্যে সাতটায় জিতে এসেছিলাম। ন’নম্বর ম্যাচটায় নিজেদের আরও উদ্দীপিত করা উচিত ছিল,’’ উপ্পলে হায়দরাবাদের কাছে হারের পরে সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন সিএসকে কোচ।

এই হারের ফলে প্র্যাক্টিসে কি কিছু পরিবর্তন হবে? ফ্লেমিংয়ের জবাব, ‘‘সে রকম কিছু নয়। যে জিনিসগুলো ঠিকঠাক করা উচিত, আমরা সেগুলোর ওপরই জোর দিতে চাই। আমি জানি না, পরপর ম্যাচ জিতছিলাম বলে আমাদের মধ্যে কোনও আত্মতুষ্টি চলে এসেছিল কি না। তবে এটাও ঠিক, মাঝে মাঝে হারতে হবেই।’’ ফ্লেমিং আরও বলেন, ‘‘আমাদের পরের ম্যাচ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের সঙ্গে। প্রতিটা ম্যাচে আমাদের সেরাটা দিতে হবে। কোন দল কেমন খেলছে, সেটা বড় কথা নয়। মনে রাখতে হবে, আইপিএলের প্রতিটা 

ম্যাচেই লড়াই হয়।’’