আইপিএলে এখনও পর্যন্ত দু’টি দলের কাছে হেরেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। দু’বার হার দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে। এক বার তাদের হারিয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস। আজ, রবিবার ইডেনে ফিরতি ম্যাচে সেই মহেন্দ্র সিংহ ধোনির দলের বিরুদ্ধে নামছে কেকেআর। কিন্তু আন্দ্রে রাসেলের চোট নিয়ে উদ্বেগের মেঘ কাটেনি কেকেআর শিবিরে।

শুক্রবার দিল্লি ক্যাপিটালসের পেসার কাগিসো রাবাডার একটি ফুলটস বল ব্যাটের নীচে লেগে আছড়ে পড়ে রাসেলের হাঁটুতে। তার পরে বল করতেও সমস্যা হয় ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডারের। যার প্রভাব পড়ে ম্যাচেও। শনিবার চেন্নাই ম্যাচের আগের দিন অনুশীলনেও আসেননি কেকেআরের ‘বাহুবলী’। দলীয় সূত্রে খবর, হোটেলেই বিশ্রাম নিচ্ছেন রাসেল। সঙ্গে চলছে ‘আইসপ্যাক’ ও মাসাজ। নাইটদের সহকারী কোচ সাইমন ক্যাটিচ যদিও মনে করেন, এক দিনের বিশ্রামে সেরে উঠবেন রাসেল। 

ক্যাটিচ বলেন, ‘‘দুর্ভাগ্যবশত গত ম্যাচে রাবাডার ফুলটসে আঘাত পেয়েছে রাসেল। আশা করি, এক দিনের বিশ্রামে ঠিক হয়ে যাবে ও। গত দশ দিনে কাল আমাদের পঞ্চম ম্যাচ হতে চলেছে। টানা ম্যাচ খেলার ধকলও তো রয়েছে। তাই বিশ্রাম নিয়েছে অনেকেই।’’ রাসেলের চোটের পাশাপাশি কেকেআর শিবিরে অনেকেই অসুস্থ। যেমন জ্বর হয়েছে ক্রিস লিনের। এ দিন অনুশীলনে এসে বেশিক্ষণ ব্যাট করেননি। দীনেশ কার্তিকও শেষ দিন জানিয়েছিলেন, তাঁর ঠান্ডা লেগেছে। ক্যাটিচ বলছিলেন, ‘‘দলের অনেকেই অসুস্থ। শুধু ক্রিকেটারেরাই নয়, সাপোর্ট স্টাফেরাও একই সমস্যায় ভুগছে।’’

চোট ও অসুস্থতা কাটিয়ে তোলার উপায় রয়েছে। কিন্তু মহেন্দ্র সিংহ ধোনির মস্তিষ্ক পড়ে ফেলার উপায় হয়তো বার করতে পারেনি কেকেআর শিবির। চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে ফিরতি ম্যাচেও কেকেআর শিবিরে আতঙ্ক ধোনির নেতৃত্ব। ক্যাটিচ বলছিলেন, ‘‘চেন্নাইয়ে আমরা নিজেদের সেরাটা দিতে পারিনি ঠিকই, কিন্তু হারের অন্যতম কারণ ধোনির নেতৃত্ব। খুব ভাল প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে আসে। বোলার ও ফিল্ডারদের খুব ভাল ব্যবহার করতে জানে। কোথায় কাকে প্রয়োজন, তা ওর নখদর্পণে। ওর নেতৃত্বের বিরুদ্ধেও আমাদের আজ পরীক্ষা দিতে হবে।’’

এ দিন কেকেআর অনুশীলনে অনেকেই উপস্থিত ছিলেন না। শুভমন গিল, কুলদীপ যাদব, কার্লোস ব্রাথওয়েট, আন্দ্রে রাসেল, দীনেশ কার্তিকেরা হোটেলেই বিশ্রাম করেন। কিন্তু হ্যামস্ট্রিংয়ে চোটের কোনও চিহ্নই খুঁজে পাওয়া গেল না সুনীল নারাইনকে দেখে। এমনকি হ্যামস্ট্রিংয়ে কোনও ব্যান্ডও লাগানো নেই। খুব সম্ভব চেন্নাই ম্যাচে হয়তো ফেরানো হবে নারাইনকে। সে ক্ষেত্রে ফর্মে থাকা শুভমন গিলকে ফের ব্যাটিং অর্ডারের নীচের দিকে ফিরে যেতে হবে।

ক্যাটিচ বলছিলেন, ‘‘গত ম্যাচে অসাধারণ ব্যাট করেছে শুভমন। ওর আউট হওয়াই আমাদের হারের অন্যতম কারণ। একেবারে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের মতো ব্যাট করল। শুরুতে সেট হওয়ার পরে শট নিতে শুরু করেছিল। আশা করি, ভবিষ্যতে অনেক ম্যাচে উপরের দিকে খেলার সুযোগ পাবে।’’ সেখানেই না থেমে ক্যাটিচ আরও বলেছেন, ‘‘লিন ও নারাইনের ওপেনিং জুটি পাওয়ারপ্লেতে যে ভাবে রান বার করে এনেছে, তা অসাধারণ। এ বিষয়ে আমাদের আরও একটু ভাবতে হবে।’’ যোগ করেন, ‘‘আমাদের ব্যাটিং লাইন-আপের এটাই বিশেষত্ব। যে কোনও জায়গায় ব্যাট করার জন্য প্রস্তুত আমাদের ব্যাটসম্যানেরা।’’

সাত ম্যাচ আট পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে কেকেআর। সমান সংখ্যক পয়েন্টে রয়েছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। নেট রান রেটে তিন নম্বরে ।