আট ম্যাচে জয় সাত। আজ, বুধবার সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ম্যাচ জিততে পারলেই প্লে অফে খেলার ছাড়পত্র চলে আসবে হাতে। আর সেই কাঙ্ক্ষিত জয় নিয়ে বিন্দুমাত্র উদ্বেগ নেই চেন্নাই সুপার কিংস শিবিরে।

মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলনে এসে সিএসকে বোলিং পরামর্শদাতা এরিক সিমন্স শুনিয়ে দিয়ে গেলেন, ডেথ ওভার বোলিংই তাঁদের দলের সাফল্যের সেরা অস্ত্র। আর তাকেই প্রয়োজন মতো ব্যবহার করে তাঁরা পৌঁছে যেতে চান লক্ষ্যে। সিমন্স বলেছেন, ‘‘এটা বলতে কোনও বাধা নেই, চেন্নাই সুপার কিংস দলের সেরা অস্ত্র ডেথ ওভার বোলিং। আমাদের বোলাররা সেই সময়ে দারুণ কার্যকরী ভূমিকা নিচ্ছে।’’ গত রবিবার ইডেনে কলকাতা নাইট রাইডার্সের ম্যাচের প্রসঙ্গ টেনে সিমন্স বলেছেন, ‘‘আমি তো মনে করি, ওই ম্যাচে ডেথ ওভার বোলিং চলতি আইপিএলে সেরা ছিল। আসলে আমরা এই ব্যাপারটা নিয়ে প্রতিনিয়ত পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছি। তার সুফলও মিলছে। প্রতিযোগিতা যত এগোবে, এই ডেথ ওভার বোলিং আমাদের সেরা হাতিয়ার হবে।’’

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

শেষ ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটালসের কাছে হারের পরে চাপেই পড়ে গিয়েছে সানরাইজার্স শিবির। দলের এক নম্বর তারকা ডেভিড ওয়ার্নারের মনে হচ্ছে, মাঝের সারিকে দায়িত্ব নিয়ে স্কোরবোর্ডকে সচল রাখতে হবে। তিনি বলেছেন, ‘‘আমার মনে হয়েছে মাঝেকর সারিকে প্রতিকূল পরিস্থিতির মুখে সাহস নিয়ে লড়াই করতে হবে। সেটা শেষ ম্যাচে হয়নি।’’ যদিও ওয়ার্নার এ-ও জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি এখন আর দল তৈরি করার বিষয়ের সঙ্গে যুক্ত নন। তিনি বলেছেন, ‘‘দল কী হবে, তা নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্ট সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে। এবং এ বার আমি তার সঙ্গে যুক্ত নেই। ফলে আমার পক্ষে কাকে খেলানো দরকার, তা নিয়ে মতামত দেওয়ার সুযোগ নেই। কিন্তু আমার মনে হয়েছে, মাঝের দিকে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের রাখা দরকার। না হলে পরের দিকে চাপ বেড়ে যায়। চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে তা নিয়ে আমাদের আরও বেশি সতর্ক থাকতে হবে।’’ তবে বুধবারের ম্যাচে দল যে ঘুরে দাঁড়াতে তৈরি, তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন ওয়ার্নার। তিনি বলেছেন, ‘‘হারকে আঁকড়ে ধরে বসে থাকা অর্থহীন। আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি, ম্যাচে হেরে গেল আত্মপক্ষ সমর্থনের প্রয়োজন পড়ে না।

আর সেই অভিজ্ঞতার দৌড়ে চলতি আইপিএলে সব চেয়ে ভাল জায়গায় রয়েছে ধোনির  দল। সিমন্সের কথায়, ‘‘আমাদের দলে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের সংখ্যা তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশি। সেটা আমাদের পক্ষে লাভদায়ক হয়েছে। মহেন্দ্র সিংহ ধোনি, সুরেশ রায়না, হরভজন সিংহ, ইমরান তাহিরের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটার থাকায় কঠিন ম্যাচে জেতাও সহজ হয়ে গিয়েছে। শেষ ম্যাচে রায়নার ব্যাটিং ছিল অসাধারণ। আমরা চাই পরিস্থিতি বুঝে নিজেদের প্রয়োগ করতে। তার আগে বুধবারের জয় নিশ্চিত করা দরকার।’’