ওপেন করতে নেমে বড় রান করার পরেও ব্যাটিং অর্ডারে পিছনের দিকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল তাঁকে। যা নিয়ে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক।

প্লে-অফে যাওয়ার দৌড়ে শুক্রবার মোহালিতে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে জিততেই হত নাইটদের। এই পরিস্থিতিতে সেই ভুলের হয়তো প্রায়শ্চিত্ত করলেন কেকেআর অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। প্রীতি জিন্টার দলের ১৮৩ রান তাড়া করতে গিয়ে ক্রিস লিনের সঙ্গে ওপেন করতে নামিয়ে দেওয়া হয়েছিল পঞ্জাবের ভূমিপুত্র শুভমন গিলকে। অধিনায়কের সেই আস্থাকে সম্মান জানিয়ে ৪৯ বলে অপরাজিত ৬৫ রান করলেন শুভমন। শুধু তাই নয়, ছিনিয়ে আনলেন জয়ও। 

দু’ওভার বাকি থাকতে ক্রিস গেল, আর অশ্বিনদের বিরুদ্ধে নাইটদের সাত উইকেটে জয়ের পরে উচ্ছ্বসিত দলের মালিক শাহরুখ খানও। দীনেশ কার্তিকের দলকে অভিনন্দন জানিয়ে শুভমনের বাবার উল্লসিত ছবি-সহ তাঁর টুইট, ‘‘অভিনন্দন নাইট রাইডার্স ও দীনেশ কার্তিক। তোমাদের জিততে গেলে যে ভাবে খেলতে হত, আজ সে ভাবেই খেললে। তবে আজকের রাতটা ‘পাপা’র! গর্বিত ‘পাপা’ ও তাঁর পরিবারের জন্য থ্রি চিয়ার্স।’’

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

পঞ্জাবে খেলতে এসে নিজেদের খামারবাড়িতে গোটা দলকে ম্যাচের আগে পার্টি দিয়েছিল শুভমনের পরিবার। শুক্রবার শুভমনের খেলা দেখতে তাঁর মা-বাবা-সহ গোটা পরিবার মাঠে এসেছিলেন। মাঠে হাজির ছিলেন তাঁর গ্রামের লোকেরাও। তাঁদের সামনে পাঁচটি চার ও দু’টি ছক্কা-সহ রাজকীয় এই ৬৫ রানের ইনিংস খেলে তৃপ্ত শুভমনও। বলছেন, ‘‘দারুণ লাগছে। প্রথম ম্যাচ সেরার পুরস্কার। তাও আবার আমার ঘরের মাঠে। এর চেয়ে ভাল মুহূর্ত হতে পারে না। পরিবার ও গ্রামের লোকেরা আজ এসেছিলেন মাঠে। ওদের সামনে এই ইনিংস খেলে দারুণ লাগছে।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘এখনও একটি ম্যাচ বাকি। সেই ম্যাচ জিতে প্লে-অফে যেতে পারলে দারুণ লাগবে।’’

শুভমনের ইনিংসে উচ্ছ্বসিত দীনেশ কার্তিক বলছেন, ‘‘আজ ওকে ওপেন করতে পাঠিয়েছিলাম। সেই সুযোগটা ও দারুণ কাজে লাগাল।’’