শেষ ম্যাচে দু’দলই পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছে। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ হেরেছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে। চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে হেরেছে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। সোমবার মোহালিতে মুখোমুখি হতে চলেছে আর অশ্বিন ও  ভুবনেশ্বর কুমার।

দু’দলেরই মূল ভরসা তাঁদের ওপেনারেরা। তাঁদের উইকেট দ্রুত পড়ে গেলেই পরীক্ষার মধ্যে পড়তে হবে মিডল অর্ডারকে। যে পরীক্ষা পঞ্জাবকে বেশি দিতে হলেও হায়দরাবাদকে দিতে হয়নি। 

গত ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে এ ভাবেই ভুগতে হয়েছে হায়দরাবাদকে। প্রথম চার ম্যাচে ১০০ রানের উপর জুটি গড়েন ডেভিড ওয়ার্নার ও জনি বেয়ারস্টো। কিন্তু গত ম্যাচে দু’জনেই ব্যর্থ। যার ফল, ৯৬ রানে অলআউট ওয়ার্নাররা। পঞ্জাবের বিরুদ্ধেও তাঁদের ওপেনারেরা ব্যর্থ হলে পরীক্ষার মধ্যে পড়বেন দীপক হুডা, ইউসুফ পাঠানেরা।

সহ-অধিনায়ক ভুবনেশ্বর কুমারও এ বিষয়ে চিন্তিত। মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ শেষে তিনি বলেছেন, ‘‘মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানেরা এত দিন পরীক্ষার মধ্যে পড়েনি। তাই বলা যাবে না যে ওরা খারাপ করছে। কিন্তু বিষয়টি সত্যি উদ্বেগের। ওপেনারদের উপর তো সব ম্যাচে নির্ভর করে থাকলে চলবে না।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘কয়েকটি জায়গায় উন্নতির প্রয়োজন। তার মধ্যে সব চেয়ে প্রথম আমাদের ব্যাটিং। আমি আশাবাদী যে, আগামী ম্যাচে একই ভুল ব্যাটসম্যানেরা 

করবে না।’’

চোটের জন্য সব ম্যাচে খেলতে পারছেন না কেন উইলিয়ামসন। কিন্তু ভুবি আশাবাদী আগামী ম্যাচে অধিনায়ক হিসেবে ফিরে আসবেন নিউজ়িল্যান্ড তারকা। ভুবির কথায়, ‘‘কেন ফিট হলে ও খেলবেই। কিন্তু কার জায়গায় খেলবে তা কঠিন প্রশ্ন। যদিও দল নিয়ে ভাবনা চিন্তা করার আগে কোথায় ভুল হচ্ছে সেটা নিয়ে ভাবা উচিত।’’

অন্য দিকে অশ্বিন নিশ্চয়ই চাইবেন ঘরের মাঠে ছন্দে ফিরুক ক্রিস গেল। সেই সঙ্গে দ্রুত রান তুলুক কে এল রাহুল ও সরফরাজ খান। পঞ্জাবের হয়ে ধারাবাহিক পারফর্ম করে চলেছেন তাঁদের অধিনায়কই। গত ম্যাচে চেন্নাইয়ের যে তিন উইকেট পড়েছিল, তার প্রত্যেকটি পেয়েছিলেন অশ্বিন। হায়দরাবাদের বিরুদ্ধেও তাঁকে বড় ভূমিকা নিতে হবে। যে হেতু নতুন বলে শুরু করছেন তাই অশ্বিনের মূল লক্ষ্য থাকবে ডেভিড ওয়ার্নারের উইকেট। বাঁ হাতি ব্যাটসম্যানের বিরুদ্ধে এমনিতেই সফল অশ্বিন। সোমবারও তা হয় কি না সেটাই দেখার।