• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কোহালির অনুপ্রেরণা মাদার মেরি 

Virat Kohli inspiration
অধিনায়ক বিরাট কোহলি, ছবিছ পিটিআই

আগামী বছর জানুয়ারি মাসে বাবা হতে চলেছেন তিনি। তার আগেই অভিভাবক হিসেবে তাঁর প্রেরণার নাম উল্লেখ করলেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহালি।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের অধিনায়কের সেই প্রেরণা হলেন, মহিলাদের বক্সিংয়ে ছয় বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন মেরি কম। কোহালির মতে, সংসার এবং বাচ্চাদের সামলেও কী ভাবে খেলার মাঠে সাফল্যের শিখরে যাওয়া যায়, তা মেরি কমকে দেখে শেখা উচিত। তাই অভিভাবক হিসেবে চার সন্তানের মা মেরির দেখানো রাস্তাতেই হাঁটতে চান বিরাট।

একটি খেলার সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী সংস্থার উদ্যোগে এক আলাপচারিতায় মেরি কমকে বিরাট বলেন, ‍‘‍‘ব্যস্ত পেশাদার ক্রীড়াবিদ এবং অভিভাবক হিসেবে তোমার কথাই মনে আসে।’’ আইপিএলের মাঝে বিরাটের সঙ্গে এই আড্ডায় হাজির ছিলেন তাঁর অভিনেত্রী স্ত্রী অনুষ্কা শর্মা। ছিলেন ম্যাঞ্চেস্টার সিটির কোচ পেপ গুয়ার্দিওলাও। তিনি আবার বিরাটের কাছে ক্রিকেট খেলা শিখতে চেয়েছেন। আড্ডার মাঝে মেরি কমকে প্রশ্ন করেন বিরাট, ‍‘‍‘একজন মা হিসেবে নিয়মিত অনুশীলন এবং দেশে-বিদেশে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় যোগদান করে সাফল্য পাওয়া, কী ভাবে দুই ভূমিকায় ভারসাম্য রক্ষা করে চলো?’’ মেরি উত্তর দেন, ‍‘‍‘বিয়ের পরে স্বামী আমার একটা বড় শক্তি। ও আমাকে প্রচুর সহায়তা করে। ও একজন আদর্শ স্বামী এবং বাবা।’’ যোগ করেন, ‍‘‍‘অনেকেই নেতিবাচক কথা বলেন। এর ফলে অনেক সময় সমস্যা হয়। আমার মতো তোমাকেও (কোহালি) দেখে অনেকেই প্রেরণা পান। আমাদের দেশে অনেক কিংবদন্তি রয়েছেন। যাঁদের দেখে আবার আমি প্রেরণা পাই।’’

করোনা সংক্রমণের জন্য অলিম্পিক্স এক বছর পিছিয়ে যাওয়ার প্রসঙ্গ ওঠে। যে প্রসঙ্গে মেরি বলেন, ‍‘‍‘প্রথমে আমি খুব অবাক হয়েছিলাম। এটা ছিল একটা বড় ধাক্কা। তবে জীবনযাত্রা ও অনুশীলন আগের মতোই রয়েছে। মন দিয়ে দৌড়, স্কিপিং, করছি।’’ বিরাট আবার জানান, সাদা জুতো পরাটা পয়মন্ত বলে মনে করেন তিনি। ‘‘আমি ব্যাট করার সময় সাদা জুতো পরতেই ভালবাসি। কিছুটা কুসংস্কারের মতোই,’’ গুয়ার্দিওলাকে বলেন কোহালি। ভারত অধিনায়ককে বিশ্ববন্দিত ফুটবল কোচ আরও বলেন, ‘‘দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে খেলাটা অন্য অভিজ্ঞতা। মনে হয় যেন প্রীতি ম্যাচ খেলছি।’’   

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন