• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

স্টোকসের বিধ্বংসী ১০৭, সঞ্জুর ৫৪, মুম্বইকে সহজেই হারাল রাজস্থান

STOKES AND SANJU
স্টোকস ও সঞ্জু রাজস্থানকে এনে দিলেন দারুণ জয়। ছবি-সোশ্যাল মিডিয়া।

১৯৫ রান করেও ম্যাচ জিততে পারল না মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। বেন স্টোকসের বিধ্বংসী ১০৭ (৬০ বলে) ও সঞ্জু স্যামসনের অপরাজিত ৫৪ (৩১ বল) রানের সৌজন্যে রাজস্থান রয়্যালস রবিবার জিতল আবু ধাবিতে। স্টোকস ও সঞ্জু ১৫২ রানের পার্টনারশিপ গড়েন।যশপ্রীত বুমরা, ট্রেন্ট বোল্ট সমৃদ্ধ মুম্বইয়ের বোলিং পারল না স্টোকস ও সঞ্জুকে থামাতে। 

২০ ওভারে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স করেছিল ৫ উইকেটে ১৯৫ রান। এই রান তাড়া করে জেতা রীতিমতো কঠিন। বিশেষ করে মুম্বইয়ের মতো দলের বিরুদ্ধে। রাজস্থান শুরুতেই হারায় রবিন উথাপ্পা (১৩) ও স্টিভ স্মিথের (১১) উইকেট। কিন্তু এর পরেই ম্যাচের রাশ হাতে তুলে নেন স্টোকস ও সঞ্জু।

যদিও স্টোকসকে ২৬ রানে আউট করার সুযোগ হাতছাড়া করে মুম্বই। ক্রুনাল পাণ্ড্যর বলে ডিপ মিড উইকেটে ক্যাচ তুলেছিলেন স্টোকস। ক্যাচটা কঠিনই ছিল। হার্দিক পাণ্ড্য মরিয়া চেষ্টা করেও সেই যাত্রায় স্টোকসকে তালুবন্দি করতে পারেননি। সেটাই হয়তো ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট হয়ে গেল। এর পরে স্টোকসকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। মুম্বই বোলারদের আক্রমণের রাস্তা নেন তিনি। সঞ্জুও সঙ্গত করে যান তাঁকে। কোনও সময়তেই আস্কিং রেট বাড়তে দেননি দু' জন। দুই তারকার যুগলবন্দিতে রাজস্থান ১০ বল বাকি থাকতে ম্যাচ জিতে নেয়। 

রবিবার টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন মুম্বই অধিনায়ক কেইরন পোলার্ড। রোহিত শর্মাকে এ দিনও বিশ্রামে রাখা হয়। তাই পোলার্ডের হাতে নেতৃত্বের ব্যাটন। এই অবস্থায় মুম্বইয়ের হয়ে ওপেন করতে নামেন ঈশান কিষাণ ও কুইন্টন ডি' কক। ম্যাচের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলেই কুইন্টন ডি' কককে (৬) বোল্ড করেন জোফ্রা আর্চার। 

এর পরে ঈশান কিষাণ ও সূর্য কুমার যাদব দাপট দেখাতে শুরু করেন। দুই ব্যাটসম্যান ৮৩ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। ক্রমশ ভয়ঙ্কর দেখাচ্ছিল দু'জনকে। এই জুটি ভাঙতে হলে বিশেষ কিছু করে দেখাতে হতো রাজস্থান শিবিরকে। সেই কাজটাই করেন জোফ্রা আর্চার। কার্তিক ত্যাগীর বলে ঈশান কিষাণের (৩৬ বলে ৩৭) ক্যাচ এক হাতে ধরেন তিনি। আর ওই দুরন্ত ক্যাচের পরে মুম্বইয়ের ইনিংসে রান তোলার গতি সাময়িক ভাবে কমে গিয়েছিল। 

সূর্য কুমার যাদব (২৬ বলে ৪০) জমে যাওয়ার পরে নিজের উইকেট ছুড়ে দেন।  ১২.২ ওভারে মুম্বইয়ের রান তখন ৩ উইকেটে ৯৫। শ্রেয়াস গোপালের বলে ঠকে গিয়ে বোল্ড হন পোলার্ড (৬)। পর পর উইকেট টলে যাওয়ায় রান তোলার গতি কমে গিয়েছিল মুম্বইয়ের। কিন্তু আসল সময়ে গিয়ার বদলান সৌরভ তিওয়ারি ও হার্দিক পাণ্ড্য। ২৫ বলে ৩৪ রান করে আউট হন সৌরভ। তার পরে হার্দিক পাণ্ড্য মারমুখী মেজাজে ব্যাট করেন। ২১ বলে অপরাজিত ৬০ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ২টি চার ও সাতটি ছক্কায় সাজানো ছিল তাঁর ইনিংস। শেষ ওভারে ২৭ রান নেন পাণ্ড্য। শেষ ৪ ওভারে ৭৪ রান তোলে মুম্বই। রাজস্থান বোলারদের ব্যর্থতা চোখে পড়ে। ভুল লেন্থে বল করেন তাঁরা। আর তার পুরোদস্তুর সুবিধা নেন হার্দিক পাণ্ড্য। কিন্তু দিনটা যে পাণ্ড্যর ছিল না। রবিবারের আবু ধাবির আসল নায়ক তো স্টোকস। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন