• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ম্যান ইউয়ের ড্রয়ে তোপের মুখে জোসে

jose mourinho
খেলা শেষ হলে জোসে মোরিনহোকে উদ্দেশ্য করে অনেকক্ষণ নানা টিটকিরিও দেওয়া হয়। ছবি: এএফপি।

ম্যান ইউ ০  •  ভ্যালেন্সিয়া ০

চাপ কমল না জোসে মোরিনহোর। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপের ম্যাচে ভ্যালেন্সিয়ার সঙ্গে ০-০ ড্র করল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড। ভিআইপি বক্সে বসে খেলা দেখলেন ডেভিড বেকহ্যাম-সহ ক্লাবের প্রাক্তন তারকারা। ম্যাচটা ম্যান ইউ হেরে গেলেও বলার কিছু ছিল না। দলে ফেরানো মার্কোস র‌্যাশফোর্ড আর অ্যালেক্সিস স্যাঞ্চেজ ভাল শুরু করলেও ভ্যালেন্সিয়া ক্রমশ চাপ বাড়াতে থাকে। আর এটা হওয়ার পর থেকেই রোমেলু লুকাকুদের চূড়ান্ত অসংগঠিত দেখিয়েছে।
ম্যাচের পরের সাংবাদিক সম্মেলনে এসে ম্যান ইউ ম্যানেজার জোসে মোরিনহো তাঁর দলের কয়েক জন ফুটবলার সম্পর্কে মন্তব্য করলেন, ‘‘ওদের টেকনিক্যাল জ্ঞানের অভাব রয়েছে।’’ সব প্রতিযোগিতা মিলে ম্যান ইউ টানা চারটি ম্যাচে জিততে পারল না। কিন্তু ঘরের মাঠেও কেন ভ্যালেন্সিয়াকে হারানো গেল না জানতে চাওয়া হলে জবাব, ‘‘ওরা চেষ্টা করেছে। কিন্তু কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় কী করতে হবে তার কোনও টেকনিক্যাল জ্ঞানই ছিল না কয়েক জনের।’’ ঘরের মাঠে সমর্থকেরা মোরিনহোকে ব্যাপক টিটকিরি দিয়েছে। পাশাপাশি ক্লাবের প্রাক্তন মিডফিল্ডার পল স্কোলস একেবারে খোলাখুলি বলেছেন, ‘‘আমাদের ক্লাব এতটাই খারাপ খেলছে যে এরপরও মোরিনহো কেন বরখাস্ত হচ্ছেন না ভেবে অবাক হচ্ছি।’’ প্রসঙ্গত রেড ডেভিলসের জার্সি পরে স্কোলস ৭১৭টি ম্যাচ খেলেছেন। তাঁর আরও কথা, ‘‘এই ম্যানেজার এখন আমাদের চূড়ান্ত অস্বস্তির কারণ।’’ যা নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে পর্তুগিজ ম্যানেজারকে প্রশ্ন করা হলে প্রতিক্রিয়া, ‘‘সকলের বাকস্বাধীনতা আছে। এটা একটা মুক্ত দেশ। এখানে যে যা ইচ্ছে বলতেই পারে।’’ এ দিন ম্যাচে সারাক্ষণই ম্যান ইউ সমর্থকেরা ‘আক্রমণ-আক্রমণ-আক্রমণ’ বলে চেঁচিয়ে গিয়েছে। খেলা শেষ হলে ম্যানেজারকে উদ্দেশ্য করে অনেকক্ষণ নানা টিটকিরিও দেওয়া হয়। মোরিনহো অবশ্য এই ঘটনা নিয়ে বলেছেন, ‘‘ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের ভক্তদেরও কথা বলার স্বাধীনতা রয়েছে। আমার ওদের প্রতি একশো ভাগ শ্রদ্ধা রয়েছে।’’ এ দিকে পল পোগবাকে ঘিরে নাটক এখনও চলছে। ফরাসি তারকা নিজেই জানিয়েছেন, ক্লাবের পক্ষ থেকে ম্যাচের পরে তাঁকে কোনও কথা বলতে নিষেধ করা হয়েছে। সম্প্রতি তিনি একটি ম্যাচের পরে ঘুরিয়ে মোরিনহোর সমালোচনা করে বলেন, তাঁদের আরও আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলা উচিত। ভ্যালেন্সিয়ার সঙ্গে ড্র নিয়ে প্রশ্ন করা হলে পোগবা বলে দেন, ‘‘ক্লাব আমাকে কোনও কথা বলতে বারণ করেছে।’’ প্রসঙ্গত ইপিএলে  ওয়েস্ট হ্যামের কাছে শেষ ম্যাচে হারের পরে পোগবাকে কিছু প্রশ্ন করা হলে জবাব দিয়েছিলেন, ‘‘আপনারা কি চান, আমি মারা যাই?’’
নাটক আরও আছে। ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের অধিনায়ক আন্তোনিয়ো ভ্যালেন্সিয়া তোপের সামনে পড়েছেন ইন্সটাগ্রামে ‘মোরিনহো হঠাও’ গোছের একটি পোস্ট লাইক করে। পরে ভ্যালেন্সিয়া অবশ্য বলেছেন, এটা তাঁর মারাত্মক ভুল। পোস্টে কী লেখা হয়েছে না পড়েই তিনি লাইক করে দিয়েছিলেন। অবশ্য এত রকমের ঝামেলায় মোরিনহোর পাশে দাঁড়িয়েছেন ক্লাবের অন্য এক ফুটবলার মারুয়ান ফেলাইনি। তাঁর মন্তব্য, ‘‘ড্রেসিংরুমের সবাই ম্যানেজারের পাশে আছে। সবাই আরও আরও ভাল খেলার চেষ্টা করছে। উন্নতিও হচ্ছে।’’  

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন