নয়াদিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজের পঞ্চম তথা শেষ একদিনের ম্যাচে জুটিতে রেকর্ড করেছেন ভারতের কেদার যাদবভুবনেশ্বর কুমার। যদিও অ্যারন ফিঞ্চের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ার ৩৫ রানে জয় আটকাতে পারেননি তাঁরা।

২৭৩ রানের জয়ের লক্ষ্য তাড়া করে ২৮.৫ ওভারে ১৩২ রানে পড়ে গিয়েছিল ভারতের ছয় উইকেট। প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছিলেন শিখর ধওয়ন, বিরাট কোহালি, ঋষভ পন্থ, বিজয় শঙ্কর, রোহিত শর্মা ও রবীন্দ্র জাডেজা। সেই সময়ই কেদার যাদবের সঙ্গে জুটি বাঁধেন ভুবনেশ্বর কুমার। সপ্তম উইকেটে দু’জনে যোগ করেন ৯১ রান।

ভারত-অস্ট্রেলিয়া ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে খেলুন কুইজ

দু’জনের জুটি ভারতীয় সমর্থকদের মধ্যে ফিরিয়ে আনে আশা। জুটিতে দু’জনে টপকে যান অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে রান তাড়ায় সপ্তম উইকেট বা তার নীচের উইকেটের জুটিতে ভারতের সর্বাধিক রান। এর আগে ২০০৯ সালে ভদোদরায় অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে রান তাড়ার সময় সপ্তম উইকেট বা তার নীচের উইকেটের জুটিতে হরভজন সিংহপ্রভীন কুমার ৮৪ রান যোগ করেছিলেন। সেটাই টপকে গেলেন কেদার-ভুবি।

আরও পড়ুন: ব্যাটিংয়ে গভীরতার অভাব! বিশ্বকাপের দল নিয়ে কোহালির দাবির উল্টো মন্তব্য গম্ভীরের​

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে এটাই ভারতের দুর্বলতা! মিডল অর্ডার চিন্তায় রাখছে মঞ্জরেকরকে​

বল হাতে তিন উইকেটের পর ব্যাটে ৪৬ রান। কোটলায় ব্যাটে-বলে
নজর কাড়লেন ভুবনেশ্বর কুমার। ছবি টুইটারের সৌজন্যে।

যখনই মনে হচ্ছিল কেদার-ভুবি অবিশ্বাস্য জয় ছিনিয়ে আনতে চলেছেন, তখনই ছন্দপতন। পর পর ফিরলেন ভুবি ও কেদার। ৫৪ বলে ৪৬ করলেন ভুবি। যাতে ছিল তিনটি চার ও দুটো ছয়। আ ৫৭ বলে কেদারের ব্যাটে এল ৪৪। যাতে ছিল চারটি চার ও একটি ছয়। ভারতের সপ্তম ও অষ্টম উইকেট পড়ল ২২৩ রানেই। এবং ভারতের ইনিংসে দাঁড়ি পড়ল ২৩৭ রানে। ম্যাচের সঙ্গে সঙ্গে সিরিজও খোয়াল টিম ইন্ডিয়া। আর সেটাও প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজে ২-০ এগিয়ে যাওয়ার পরে। বিশ্বকাপের আগে যা চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াল ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে।

(আইসিসি বিশ্বকাপ হোক বা আইপিএল, টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি। ক্রিকেট খেলার সব আপডেট আমাদের খেলা বিভাগে।)