• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কোহালির সেই ফ্লিক ভুলতে পারছেন না মুগ্ধ পিটারসেন

Kevin Pietersen is praising Virat Kohli's flick
প্রতিজ্ঞ: আজ, রবিবারও কোহালির ব্যাটিংয়ের শাসনের দিকে তাকিয়ে রয়েছে ভারতীয় শিবির। ফাইল চিত্র

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে দুটো লক্ষ্য সামনে নিয়ে নামবেন বিরাট কোহালি। এক, কায়রন পোলার্ডের দলকে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জেতা। দুই, রোহিত শর্মাকে পিছনে ফেলে টি-টোয়েন্টিতে সর্বাধিক রানের মালিক হওয়া। আপাতত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে কোহালির রান ২৫৪৪। রোহিতের চেয়ে তিন রান পিছনে। আজ, রবিবার, তিরুঅনন্তপুরমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে রোহিতও খেলবেন। ফলে বিশ্ব ক্রিকেটের দুই সেরা ক্রিকেটারের নিজেদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতাও আকর্ষণ হতে পারে এই ম্যাচের।

শনিবার সন্ধ্যায় হায়দরাবাদ থেকে তিরুঅনন্তপুরম পৌঁছয় দুই দল। স্বাভাবিক ভাবেই প্র্যাক্টিসের কোনও প্রশ্ন ছিল না। ক্রিকেট বিশ্বে এই মুহূর্তে আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে হায়দরাবাদে কোহালির ওই ৫০ বলে অপরাজিত ৯৪ রানের ইনিংস। যে ইনিংস দেখে মুগ্ধ স্বয়ং ভিভিয়ান রিচার্ডস। তিনি টুইট করেন, ‘‘বিস্ময়কর, সত্যি বিস্ময়কর।’’

কোহালি নিজে ইনস্টাগ্রামে প্রথম ম্যাচের কয়েকটি ছবি দিয়ে পোস্ট করেন, ‘‘ভাল ভাবেই সিরিজটা শুরু হল। এই জয়ের মধ্যে অনেক কিছু ইতিবাচক প্রাপ্তি আছে।’’ নিজের ইনিংস নিয়ে ম্যাচের পরে কোহালি বলেছিলেন, ‘‘যে সব তরুণ ব্যাটসম্যান আমার ব্যাটিং দেখেছে, তাদের বলব, ইনিংসের প্রথম পর্বটা মাথায় রেখো না। প্রথম দিকে দ্রুত রান তোলার চেষ্টায় আমি স্লগ করছিলাম। কিন্তু পরে বুঝতে পারি ওটা আমার খেলা নয়। তাই পরের দিকে নিজের খেলার ধরনটা বদলে ফেলি।’’ 

জেসন হোল্ডারের বলে মিডঅফের উপর দিয়ে একটা ছয় মারার পরে নিজের টাইমিং ফিরে পান বিরাট। এর পরে কেসরিক উইলিয়ামসকে ফ্লিক করে গ্যালারিতে ফেলে দেন। পরে একই দশা করেন কায়রন পোলার্ডেরও। কোহালির এই দুটো ফ্লিক শটে মুগ্ধ ক্রিকেট দুনিয়া। ভারত অধিনায়কের ইনস্টাগ্রাম পোস্টে ইংল্যান্ডের প্রাক্তন ব্যাটসম্যান কেভিন পিটারসেন মন্তব্য করেন, ‘‘তোমার ফ্লিকটা সত্যিই একটা শট ছিল বটে! অবিশ্বাস্য।’’ 

কোহালির সঙ্গে শুক্রবার নজর কেড়েছেন ওপেনার কে এল রাহুলও। তিনি আর কোহালি মিলে দ্বিতীয় উইকেটে একশো রান যোগ করেন। রাহুল করেন ৪০ বলে ৬২। প্রথম দিকে দশের উপরে রান রেট তাড়া করায় তিনিই প্রধান ভূমিকা নিয়েছিলেন। ম্যাচের পরে ‘চহাল টিভি’-তে এসে যুজবেন্দ্র চহালকে এই ওপেনার বলেন, ‘‘টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এখনও অনেক দূরে আছে। ওটা নিয়ে ভাবছি না। বেশ কয়েকটা সিরিজ বাদে ওপেন করার সুযোগ পেয়েছি আবার। সেটা এখন কাজে লাগাতে চাই।’’

ওপেনার শিখর ধওয়ন চোট পেয়ে ছিটকে যাওয়ায় রাহুলের সামনে ফের সুযোগ এসেছে শুরুতে নামার। বেশ কয়েক জন প্রাক্তন ক্রিকেটার মনে করেন, ধওয়নকে ভুলে এখন রাহুলকে ওপেনে সুযোগ দেওয়া উচিত। সিরিজের প্রথম ম্যাচ জিতে রাহুল বলেন, ‘‘ভালই ছন্দে ছিলাম। আশা করব, এই ভাবে খেলে যেতে পারব। অক্টোবরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আরও বেশ কিছু ম্যাচ খেলার সুযোগ পাব।’’ হায়দরাবাদে দু’দলই দুশোর উপরে রান করলেও রাহুল মনে করেন, ব্যাট করা খুব সহজ ছিল না। তিনি বলেছেন, ‘‘দু’দল বড় রান করলেও ব্যাট করাটা একটু কঠিন ছিল। কয়েকটা ওভার লেগেছে উইকেটের সঙ্গে মানিয়ে নিতে।’’

তাঁর এবং কোহালির বড় জুটি হওয়া নিয়ে রাহুলের মন্তব্য, ‘‘দুশো রান তাড়া করতে নামলে শুরু থেকে আগ্রাসী ব্যাটিং করতেই হয়। যে কারণে টাইমিংয়ে একটু সমস্যা হয়ে যায়। তবে জানতাম, কয়েকটা বাউন্ডারি মারতে পারলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।’’ রবিবার আবার দু’দল মুখোমুখি হচ্ছে। এই ম্যাচ জিততে পারলেই সিরিজ ভারতের।   

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন