২৮ বছরেই একদিনের ক্রিকেটে তিরিশটি শতরান!

ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালির এই তিরিশটি শতরানই দেখেছেন সুনীল গাওস্কর। রবিবার কলম্বোতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে বিরাটের অপরাজিত ১১০ দশ রান দেখার পরে যা জানিয়ে গাওস্কর বলছেন, ‘‘কোহালির তিরিশটি শতরানই দেখেছি। যার সব কটাই দারুণ।’’

রবিবার দ্বীপরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে শতরানের পর একদিনের ক্রিকেটে প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক রিকি পন্টিং-কে ধরে ফেললেন কোহালি। তবে পন্টিং তিরিশটি শতরান করতে নিয়েছিলেন ৩৭৫টি ম্যাচ। সেখানে বিরাট এ দিন তাঁর তিরিশতম শতরানে পৌঁছে গেলেন ১৯৪ তম ম্যাচে। অর্থাৎ প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ককে বিরাট ছুঁয়ে ফেললেন তাঁর চেয়ে ১৮১ ম্যাচ কম খেলেই।

১৯৯৮ মরসুমে সচিন তেন্ডুলকর ন’টি শতরান করেছিলেন। রবিবার ম্যাচের পর বিরাটের এই তিরিশটি শতরান সম্পর্কে আলোচনায় এই প্রসঙ্গও এসেছে। যে সম্পর্কে সানি বলছেন, ‘‘ক’টা ইনিংসে বিরাট এই তিরিশটি শতরান করল তা একবার দেখুন! মনে রাখবেন একদিনের ক্রিকেট এমন একটা ফর্ম্যাট, যেখানে কোনও ম্যাচে শতরান তো বটেই। ৭০-৮০ রান করাটাও একটা বড়সড় ব্যাপার।’’

এখানেই না থেমে গাওস্কর আরও বলছেন, ‘‘রান তাড়া করাটাও আর একটা বড় ঝুঁকি মাথায় নিয়ে খেলা। আর এই ঝুঁকি মাথায় নিয়ে খেলার সময় কিন্তু ব্যাটসম্যানকে তাঁর ‘কমফোর্ট জোন’ থেকে বেরিয়ে আসতে হয়। ফলে কপিবুক স্টাইলে ড্রাইভা বা কাট না করে এই সময়ে অনেক প্রথাবিরুদ্ধ শট খেলত হয় ব্যাটসম্যানকে। আর তা করতে গিয়েই অনেক সময় ব্যাটসম্যান সত্তর, আশি বা নব্বই-এর ঘরে আউট হয়ে যায়।’’

এ কথা বলেই গাওস্কর বিরাটের শতরানের প্রসঙ্গ টেনে এনে বলেন, ‘‘এত কম ইনিংসে বিরাটের এই তিরিশটি শতরানে পৌঁছে যাওয়া বিশ্ব ক্রিকেটের একটা অনন্য নিদর্শন।’’