ওয়াটফোর্ড ১      •       ম্যান সিটি ২

৪৪ দিনে ১৩ ম্যাচ খেলেও জিতে চলেছে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। ইপিএলে ওয়াটফোর্ডকে মঙ্গলবার হারাল ২-১ গোলে। স্বাভাবিক নিয়মেও সিটিকে ক্লান্ত দেখাচ্ছে না পেপ গুয়ার্দিওলা ঘুরিয়ে ফিরিয়ে ফুটবলার নামানোয়। শনিবার বোর্নমুথ ম্যাচে খেলা প্রথম এগারোর ছ’জনকে বাদ দিয়ে ওয়াটফোর্ডের বিরুদ্ধে দল নামালেন পেপ। বিশ্রাম দেওয়া হল রাহিম স্টার্লিং, এমেরিক লাপোর্ত ও ইলখাই গুন্ডোয়ানকে। তাঁদের জায়গায় দেখা গেল ভ্যানসঁ কোম্পানি, দাভিদ সিলভা ও রিয়াদ মাহরেজ়কে। এমনিতেই চোটের জন্য ছিটকে গিয়েছেন সের্খিয়ো আগুয়েরো, কেভিন দে ব্রুইন। কিন্তু সিটির খেলায় তার বিশেষ ছাপ নেই। যদিও ওয়াটফোর্ডকে হারিয়ে উঠে পেপ বলে গেলেন, ‘‘ইপিএল এমনই জায়গা যেখানে বিশ্রামের অবকাশ নেই। হয়তো এই কারণেই এত সুন্দর লিগটা।’’

যথারীতি ওয়াটফোর্ড ম্যাচেও আক্রমণে ঝড় তুলেছিল সিটি। কিন্তু গোল হয়েছে মাত্র দু’টি। হঠাৎ এই ম্যাচেই ম্যান সিটি স্ট্রাইকাররা গোলের সামনে স্নায়ুর চাপে ভুগছেন। যা দেখে খানিকটা হতাশ পেপের মন্তব্য, ‘‘ওয়াটফোর্ডের থেকে আমরা অনেক ভাল দল। ওদের উড়িয়ে দেওয়ারই কথা। দু’গোল দিয়ে সন্তুষ্ট  হওয়ার জায়গা নেই। অন্তত তিনটে গোল করা উচিত ছিল। তা ছাড়া শেষ পাঁচ মিনিটে ওরা বেশ কয়েকটা সুযোগ তৈরি করে। অন্তত ওই পাঁচ মিনিট ওয়াটফোর্ড আমাদের থেকে ভাল খেলেছে।’’ তাঁর আরও কথা, ‘‘ওই পাঁচ মিনিটের খেলা আমাদের বারবার দেখতে হবে। বুঝতে হবে কোথায় মার খাচ্ছিলাম।’’ 

৪০ আর ৫১ মিনিটে সিটির দু’টি গোল করলেন লেরয় সানে ও রিয়াদ মাহরেজ়। ৮৫ মিনিটে একটি গোল শোধও করে দেয় হার্টফোর্ডশায়ারের ক্লাব। করেন আবদুলায়ে দুকুয়ে। 

মাহরেজ়ের ইনসুইং করা ক্রস বুকে নামিয়ে গোল করে যান সানে। দৃষ্টিনন্দন গোল। সিটির দ্বিতীয় গোলটা বক্সের বাঁ দিক থেকে গ্যাব্রিয়েল জেসুসের ক্রসে মাহরেজের চকিতে মারা শটে। ওয়াটফোর্ডের গোলরক্ষক বেন অ্যান্থনি ফস্টার বাধা হয়ে না দাঁড়ালে বড় ব্যবধানেই জেতার কথা সিটির। মঙ্গলবারের জয়ে লিগ টেবলে দু’নম্বর লিভারপুলের থেকে পাঁচ পয়েন্ট এগিয়ে থাকল এক নম্বর গুয়ার্দিওলার ক্লাব। ১৫ ম্যাচে পয়েন্ট ৪১। লিভারপুল সেখানে ১৪ ম্যাচে ৩৬। সিটি কিন্তু ইপিএলে শেষ ১৫টি ম্যাচের ১৩টিতেই জিতল। শনিবার তাদের পরীক্ষা স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে। চেলসির সঙ্গে খেলা। যা নিয়ে পেপ বলে দিলেন, ‘‘চেলসির খেলাটা পুরোপুরি অন্য ধাঁচের। এ বার আমাকে একেবারে নতুন করে স্ট্র্যাটেজি ঠিক করতে হবে।’’