এভার্টনের কাছে ০-৪ হারের প্রতিক্রিয়া! অনুতপ্ত পল পোগবা বললেন, ‘‘ম্যাচটা আমরা যে ভাবে খেলেছি সেটা ক্লাব আর সমর্থকদের কার্যত অসম্মান করা। এখন যা অবস্থা, তাতে সবার আগে মাঠে নেমে আমাদের মানসিকতাটা বদলে ফেলতে হবে।’’

বুধবার ম্যাঞ্চেস্টার ডার্বির আগে ফরাসি তারকার এ হেন মন্তব্যে হইচই ব্রিটিশ ফুটবল মহলে। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের পরিস্থিতি অবশ্য তার আগেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ওয়ে গুন্নার সোলসারের বিবৃতিতে। এভার্টনের কাছে লজ্জার হারের পরে তিনি পরিষ্কার বলে দেন, ‘‘প্রিয় ক্লাবে ম্যানেজার হিসেবে অবশ্যই একদিন আমি সফল হব। কিন্তু তখন এখনকার দলের অনেকেই হয়তো থাকবে না।’’

ব্রিটিশ প্রচারমাধ্যমে লেখা হচ্ছে, ম্যান ইউ ম্যানেজার কার্যত হুমকি দিয়েছেন পোগবাদের। এবং এখন যা ছবি তাতে ম্যান ইউ মুখরক্ষা করতে পারে একমাত্র বুধবার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে পেপ গুয়ার্দিওলার ম্যাঞ্চেস্টার সিটিকে হারাতে পারলে।

ইপিএল টেবলে ম্যান ইউ এখন ছ’নম্বরে। পয়েন্ট ৩৪ ম্যাচে ৬৪। পাঁচ নম্বরে থাকা আর্সেনাল ৬৬ পয়েন্টে। সোমবার রাতে বার্নলির সঙ্গে ২-২ ড্র করা টেবলে চার নম্বর দল চেলসির পয়েন্ট ৬৭। এই অবস্থাতেই  লিগ শেষ হলে রেড ডেভিলসকে পরের বার আর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দেখা যাবে না। ২০২১ সালে ইউরোপ-সেরার প্রতিযোগিতায় তাদের খেলতে হলে অন্তত চ্যাম্পিয়ন হয়ে আসতে হবে ইউরোপা লিগে। এমন করুণ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে পোগবা স্বয়ং বললেন, ‘‘ভক্তেরা চায় এ বার অন্তত আমরা জেগে উঠি। মাঠে সেরাটা দিয়ে দারুণ কিছু ফল করতে পারলেই একমাত্র আমরা ক্লাবের অসংখ্য ভক্তের মুখে হাসি ফোটাতে পারব। বলতে পারেন, সেটাই হবে আমাদের তরফ থেকে দুঃখপ্রকাশের একমাত্র রাস্তা।’’

ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের প্রাক্তন কিংবদন্তি ম্যানেজার স্যর অ্যালেক্স ফার্গুসন এক বার বিদ্রুপ করেছিলেন ম্যাঞ্চেস্টার সিটিকে নিয়ে। বলেছিলেন, ‘‘ওরা অকারণে হইচই করে এমন প্রতিবেশী।’’ কিন্তু সব দিন সমান যায় না। বিশেষ করে পেপ গুয়ার্দিওলা দায়িত্ব নেওয়ার পরে এবং আরব দুনিয়ার পৃষ্ঠপোষকতা পেয়ে ম্যান সিটি এখন বদলে যাওয়া ক্লাব। গত বারের প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন। এ বারও রীতিমতো খেতাবের দৌড়ে। সের্খিয়ো আগুয়েরোদের লড়াই এ বার য়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুলের সঙ্গে। ৩৫ ম্যাচে লিভারপুলের পয়েন্ট ৮৮। একটা ম্যাচ কম খেলে ম্যান সিটি সেখানে ৮৬ পয়েন্টে। লিভারপুলের হাতে আর তিনটি ম্যাচ। তবে তাদের বাকি প্রতিপক্ষরা বেশ দুর্বল। ইতিমধ্যেই অবনমন হয়ে যাওয়া হাডার্সফিল্ড ও লিগ টেবলে তেরো নম্বরে থাকা নিউক্যাসল যেমন। ম্যান সিটির হাতে একটা ম্যাচ বেশি থাকলেও বুধবারের ডার্বি তাদের কাছে এই মুহুর্তে সব চেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। যে ম্যাচ নিয়ে লিভারপুল ম্যানেজার যা বললেন তার সারকথা, ম্যান ইউ যে অবস্থাতেই থাকুক ওরাই নাকি পারে এই মুহূর্তে ম্যান সিটিকে রুখে দিতে। এমন কথা বলায় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটে ম্যান সিটির সমর্থকেরা যথেচ্ছ খারাপ ভাষায় আক্রমণ করলেন লিভারপুলের জার্মান ম্যানেজারকে। একজন যেমন লিখলেন, ‘‘যারা এভার্টনকে হারাতে পারে না তারা আবার কী ভাবে আমাদের পয়েন্ট কাড়বে? ক্লপ দিবাস্বপ্ন দেখছেন!’’

ডার্বিতে টটেনহ্যাম ম্যাচে চোট পাওয়া কেভিন দ্য ব্রুইনকে পাচ্ছেন না পেপ গুয়ার্দিওলা। তবু তিনি বলে রাখলেন, ‘‘একটা সময় ছিল যখন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যান ইউ অপরাজেয় ছিল। কিন্তু সে সব অতীত। এখনকার ম্যান ইউ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডেও ভীতিকর ক্লাব নয়,’’ লিয়োনেল মেসির প্রাক্তন গুরুর মন্তব্য যেন ফার্গুসনের সেই কটাক্ষের জবাব। পেপ অবশ্য এটাও বললেন, ‘‘সব ম্যাচ আলাদা। ফুটবলে ভবিষ্যদ্বাণী করার মানে হয় না।’’ উদ্বেগে থাকারই কথা পেপের। চ্যাম্পিয়ন হতে লিগের শেষ চারটি ম্যাচেই তাঁদের জিততে হবে যে।

বুধবার ইপিএলে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড বনাম ম্যাঞ্চেস্টার সিটি (রাত ১২-৩০)।