রাত পোহালেই মহারণ। আর কয়েক ঘন্টা পরেই বিশ্বকাপ ফাইনালে আয়োজক দেশ ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে ভারত। মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথমবার কাপ জয়ের লক্ষে রবিবাসরীয় ফাইনালে নামবে মহিলা ভারতীয় ক্রিকেট দল।  ঐতিহাসিক লর্ডসে ৩৪ বছর আগে সৃষ্টি করা কপিল দেবের রেকর্ড স্পর্শ করার জন্য ইতিমধ্যেই ঘুঁটি সাজাতে শুরু করেছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট।

পিছিয়ে নেই প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ডও। চলতি বিশ্বকাপে একটি ম্যাচ ছাড়া সবকটিই জিতেছে ব্রিটিশ মহিলা দল। যে ম্যাচটি হেরেছে তাও ভারতের কাছেই। ফলে আগামীকালের ম্যাচটি ইংল্যান্ডের কাছে বদলার ম্যাচও বটে। চরম গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচের আগে দেখে নেওয়া যাক দু’দলের হাঁড়ির খবর।

টুর্নামেন্টের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে নামার আগে আবেগতাড়িত ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা। তবে আবেগতাড়িত হলেও, আবেগে ভেসে যেতে নারাজ মিতালিরা। ঐতিহাসিক লর্ডসে আরও একটা ইতিহাস সৃষ্টি করতে বদ্ধপরিকর ভারতীয় দল। এ দিন ভারত অধিনায়ক মিতালি বলেন, “রবিবারের বিশ্বকাপ ফাইনাল আমার এবং ঝুলনের কাছে একটা স্মরনীয় দিন হতে চলেছে। কারণ আমরা ২০০৫ থেকে দলের সঙ্গে আছি, ২০০৫ বিশ্বকাপ ফাইনালে যেটা পারিনি সেটা ২০১৭-এ করে দেখাতে চাই।”

আরও পড়ুন: কাল বিশ্বকাপ ফাইনাল: ভারত-ইংল্যান্ড শেষ পাঁচ ম্যাচের ফল

তবে, ইতিহাস সৃষ্টি করার রাস্তা যে বেশ কঠিন তাও এ দিন মনে করিয়ে দেন মিতালি। তিনি বলেন, “গ্রুপ লিগে ইংল্যান্ডকে আমরা হারিয়েছিলাম ঠিকই, তবে ফাইনাল অন্য ম্যাচ। সকলেই নিজেদের সেরাটা দিতে চাইবে। ফলে কালকের ম্যাচ কারোর জন্যই সহজ হবে না।”

অন্য দিকে, ফাইনালে নামার আগে বেশ থমথমে ইংল্যান্ড শিবির। প্রয়োজনের থেকে একটু বেশিই যেন স্তব্ধতা গ্রাস করেছে ইংল্যান্ডকে। তবে, এটাই ঝড়ের পূর্বাভাস। ম্যাচের আগের দিন সেই রকম ভাবে টিম হোটেলের বাইরে দেখা যায়নি ব্রিটিশ ক্রিকেটারদের। কিছুটা সময় জিমে কাটান ছাড়া পুরোটাই নিজেদের রুমে কাটিয়েছেন হিথার নাইটরা। এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে ইংরেজ অধিনায়ক নাইট বলেন, “ কালকের ম্যাচের গুরুত্ব বলে বোঝানোর কিছু নেই। বরাবরের মত জয়ের লক্ষ্যেই কাল আমরা মাঠে নামব। লর্ডসে ভারতকে হারিয়ে যদি আমরা বিশ্বসেরা হতে পারি, তাহলে সেটা হবে আমাদের ক্রিকেট জীবনের সেরা প্রাপ্তি। মেয়েরা তৈরি নিজেদের সেরাটা দেওয়ার জন্য।”

এখন দেখার রবিবারের ফাইনালে বিশ্বসেরার মুকুট জিতে কে স্মরনীয় করে রাখেন ঐতিহাসিক লর্ডসকে।