• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

জয়ের সঙ্গে মেসি-লাভ

Football
উচ্ছ্বাস: ভিয়ারিয়ালের বিরুদ্ধে দুরন্ত গোল করার পরে মেসির কোলে উঠে পড়লেন গ্রিজ়ম্যান। এএফপি

ভিয়ারিয়ালকে চূর্ণ করে বার্সেলোনার দুরন্ত প্রত্যাবর্তনের পরেই লিয়োনেল মেসির ক্লাব ছাড়ার জল্পনায় জল ঢেলে দিলেন জোসেপ মারিয়া বার্তেমেউ। বার্সা প্রেসিডেন্টের দাবি, ক্যাম্প ন্যু-তেই ফুটবলজীবন শেষ করার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক।

আগামী বছর বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যাচ্ছে মেসির। সপ্তাহখানেক আগেই চুক্তি নবীকরণ নিয়ে কিংবদন্তি ফুটবলারের বাবার সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন ক্লাব প্রেসিডেন্ট। তার পরেই স্পেনের একটি রেডিয়ো দাবি করে, চুক্তি নবীকরণের আলোচনা বাতিল করেছেন মেসি। এখানেই শেষ নয়। স্পেনীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রচার শুরু হয়, তাতা মার্তিনোর বরখাস্ত হওয়া থেকে কিকে সেতিয়েনের নিয়োগ— সব ক্ষেত্রেই নেপথ্যে ছিলেন মেসি। যা নাকি আর্জেন্টিনা অধিনায়ক একেবারেই মেনে নিতে পারছেন না। এবং প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ তিনি। এর পরেই শুরু হয়ে যায় জল্পনা, তা হলে কি আর বার্সায় থাকতে চান না ছ’বারের ব্যালন ডি’ওর জয়ী তারকা? মেসি যদিও তাঁর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া জানাননি।

রবিবার ভিয়ারিয়ালের বিরুদ্ধে দুরন্ত জয়ের পরেও তাই বার্সা সমর্থকেরা উৎকণ্ঠায় ছিলেন মেসিকে নিয়ে। সেই উদ্বেগ কিছুটা কমল ক্লাব প্রেসিডেন্টের আশ্বাসবাণীতে। কী বলেছেন বার্তেমেউ? স্পেনের একটি টিভি চ্যানেলে তিনি বলেছেন, ‘‘মেসি বলেছে, বার্সেলোনাতেই ও ফুটবলজীবন শেষ করতে চায়। এই মুহূর্তে আমি এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে চাই না। আমরা এখন লা লিগায় মনঃসংযোগ করছি।’’ তিনি যোগ করেছেন, ‘‘চুক্তি নিয়ে অনেক ফুটবলারের সঙ্গেই আলোচনা চলছে। মেসি আমাকে বার্সায় থাকার কথাই  বলেছে। আমরা আরও অনেক দিন ওর খেলা উপভোগ করব।’’

মেসি ক্লাব ছাড়লে সমস্যায় পড়বেন বার্তেমেউ-ও। কারণ আগামী বছরই বার্সায় নির্বাচন। প্রেসিডেন্ট পদে তাঁর প্রধান প্রতিপক্ষ ভিক্তর ফন। যিনি ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন, ভোটে জিতলে বার্সা সমর্থকদের নয়নের মণি জাভি হার্নান্দেসকে ম্যানেজার করে নিয়ে আসবেন। এই পরিস্থিতিতে মেসি যদি ক্লাব ছাড়েন, সেক্ষেত্রে বার্তেমেউয়ের পক্ষে ভোটে জেতার সম্ভাবনা খুবই কঠিন। এই কারণেই তিনি মরিয়া হয়ে উঠেছেন দলের সেরা অস্ত্রকে ধরে রাখতে।

যাঁকে নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে, সেই মেসির মনোভাব জানা যায়নি। তাঁর পাখির চোখ যে এখন লা লিগা ট্রফি। রবিবার রাতে ভিয়ারিয়ালের বিরুদ্ধে নিজে গোল না করলেও তাঁর পাস থেকেই বল জালে জড়ান লুইস সুয়ারেস ও আঁতোয়া গ্রিজ়ম্যান।

ভিয়ারিয়ালের বিরুদ্ধে গ্রিজ়ম্যানকে প্রথম একাদশে না রাখার ঝুঁকি অবশ্য নেননি সেতিয়েন। এমএসজি (মেসি, সুয়ারেজ ও গ্রিজ়ম্যানকে এখন এই নামেই ডাকছেন বার্সা সমর্থকেরা) জুটির দাপটে শুরু থেকেই আক্রমণের ঝড় তোলে বার্সা। এই চাপ সামলাতে না পেরে ম্যাচের দু’মিনিটের মধ্যেই নিজেদের গোলে বল ঢুকিয়ে দেন ভিয়ারিয়ালের পাউ তোরেস। যদিও  ১৪ মিনিটে জেরার মোরেনো ১-১ করে দেন। ছ’মিনিট পরেই মেসির পাস থেকে গোল করে বার্সাকে ২-১ এগিয়ে দেন সুয়ারেস। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার ঠিক আগে গ্রিজ়ম্যানকে দিয়ে গোল করান আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। ম্যাচ শেষ হওয়ার মিনিট চারেক আগে ৪-১ করেন পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নামা বার্সার ‘বিস্ময় বালক’ আনসু ফাতি।

রবিবারে জয়ের ফলে ৩৪ ম্যাচে ৭৩ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবলের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বার্সেলোনা। সমসংখ্যক ম্যাচ খেলে শীর্ষ স্থানে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৭৭। অর্থাৎ, ব্যবধান চার পয়েন্টের। এই পরিস্থিতিতে বার্সার পক্ষে কি জ়িনেদিন জ়িদানের দলকে টপকে চ্যাম্পিয়ন হওয়া সম্ভব?

ম্যাচের পরে বার্সা শিবিরের আক্রমণের লক্ষ্য ছিল জ়িদানের দল। রবিবারই অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিরুদ্ধে পেনাল্টি থেকে করা সের্খিয়ো র্যামোসের একমাত্র গোলে জিতেছিল রিয়াল। ভিডিয়ো অ্যাসিট্যান্ট রেফারি (ভার) দেখে পেনাল্টির নির্দেশ দিয়েছিলেন রেফারি। বিলবাওয়ের সঙ্গে রিয়াল ড্র করলে ৭৪ পয়েন্টে আটকে থাকতেন করিম বেঞ্জেমারা। সেক্ষেত্রে মাত্র এক পয়েন্ট পিছিয়ে থাকতেন মেসিরা। ক্ষুব্ধ বার্সা প্রেসেডেন্ট রিয়ালের নাম না করে বলেছেন, ‘‘এই ভার প্রযুক্তি একটা বিশেষ দলকে সাহায্য করছে। এটা একেবারেই কাম্য নয়।’’

বার্সা শিবির থেকে এই অভিযোগ আগেও উঠেছে। গত জুনেই জেরার পিকে বলেছিলেন, ‘‘কয়েকটা ম্যাচ দেখার পরে মনে হচ্ছে, রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট নষ্ট করা কঠিন।’’ এ বার ক্ষোভ উগরে দিলেন ক্লাবের প্রেসিডেন্টও। তবে সেতিয়েন কোনও মন্তব্য করেননি। সাংবাদিক বৈঠকে বার্সা ম্যানেজার বলেছেন, ‘‘আমি এই ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করব না। প্রেসিডেন্ট কী বলেছেন তা আমি শুনিনি। তা ছাড়া ভার প্রযুক্তি সম্পর্কে আমার ধারণা খুব কম।’’ আতলেতিকো দে মাদ্রিদের বিরুদ্ধে গ্রিজ়ম্যানকে ৯০ মিনিটে নামানো নিয়ে প্রবল সমালোচিত হয়েছেন সেতিয়েন। বার্সায় তাঁর ভবিষ্যৎ নিয়েও প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। এই জয় কিছুটা হলেও স্বস্তি দিয়েছে সেতিয়েনকে। সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন, ‘‘মেসি, সুয়ারেসের সঙ্গে অসাধারণ খেলেছে গ্রিজ়ম্যানও। এই জয়ে আমি দারুণ খুশি।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন