মেয়েদের এক দিনের ক্রিকেটে বিশ্বের সর্বোচ্চ উইকেটসংগ্রাহক হয়েছেন। প্রথম মেয়ে হিসেবে দু’শো উইকেট নিয়েছেন। কিন্তু তার পরেও ঝুলন গোস্বামীর কপালে জোটেনি বোর্ডের তরফে কোনও সম্মান।

তিনি একা নন, মিতালি রাজকেও ছয় হাজার রান পূর্ণ করার জন্য কোনও ভাবে সম্মানিত করেনি বোর্ড। ঝুলনের কীর্তির মতোই মিতালি বিশ্বের প্রথম মহিলা ব্যাটসম্যান যিনি এক দিনের ক্রিকেটে ছ’হাজার রান করেছেন। প্রত্যেক বছর ঘটা করে পুরস্কার অনুষ্ঠান করে বোর্ড। সেখানে নানা পুরস্কারের লাইন লেগে গিয়েছে। কিন্তু দেশের দুই সব চেয়ে কৃতী মহিলা ক্রিকেটারের বিরল কীর্তির জন্য আলাদা ভাবে পুরস্কৃত করার কথাই কর্তাদের মাথায় আসেনি। এমনিতে বোর্ডে এখন দু’টি ভাগ। এক দিকে সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত পর্যবেক্ষকের দল কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স (সিওএ)। অন্য দিকে বোর্ড কর্তারা।

কে যে সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বোর্ডের, তা নিয়ে চরম বিভ্রান্তি চলছে। এ বারের ঘরোয়া ক্রিকেটের সূচি নিয়ে প্রবল বিতর্ক শুরু হয়েছে। দেখা যাচ্ছে, ক্রিকেটীয় দিক দিয়ে যেমন বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে, তেমনই উপেক্ষিত হচ্ছেন ক্রিকেটারেরা। মিতালি এবং ঝুলনের এত বড় মাইলফলকে পৌঁছেও অনুচ্চারিত থেকে যাওয়াটা আরও চোখে লাগার মতো কারণ সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত সিওএ-তে রয়েছেন এক প্রাক্তন মহিলা ক্রিকেটার— ডায়না এডুলজি। দু’জনের কীর্তির পরেই বোর্ডের পুরস্কার অনুষ্ঠান হয়েছে। কিন্তু কেউ একটা ফলকও তুলে দিয়ে সম্মান জানায়নি ভারতে মহিলা ক্রিকেটকে জনপ্রিয় করা দুই তারকাকে।

গত বছর সর্বোচ্চ উইকেটসংগ্রাহক হওয়ার পরে সিএবি বিশেষ ভাবে সম্মান জানিয়েছিল ঝুলনকে। তবে এ বারের পুরস্কার অনুষ্ঠানে এখনও পর্যন্ত বাংলার মেয়ের দু’শো উইকেট পাওয়ার কীর্তি নিয়ে কিছু শোনা যায়নি। অনেক নামই শোনা গিয়েছে সিএবি পুরস্কারের তালিকায়। কিন্তু দু’শো উইকেটে পৌঁছনোর জন্য ঝুলনকে আলাদা ভাবে সম্মান জানানোর ঘোষণা এখন পর্যন্ত নেই। এ নিয়ে জানতে চাইলে ঝুলন অবশ্য বিনয়ের সঙ্গে বললেন, ‘‘সিএবি তো আমাকে গত বারই সম্মান জানিয়েছে সর্বোচ্চ উইকেটসংগ্রাহক হওয়ার জন্য। এ বারেরটা আর কী এমন!’’

ঘটনা হচ্ছে, বোর্ড এবং রাজ্য সংস্থা, দু’জায়গার পুরস্কারেই বিশেষ প্রাপ্তি ঘটলে আলাদা ভাবে সম্মানিত করার রেওয়াজ রয়েছে। অনেকেই অতীতে আন্তর্জাতিক মঞ্চে বিশেষ পারফরম্যান্সের জন্য এই পুরস্কার পেয়েছেন। এমনকি ভারতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার জন্যও সম্মানিত করা হয় ক্রিকেটারদের। সে সব মাথায় রাখলে দু’শো উইকেটের জন্য ঝুলনকে সম্মানিত করাই যেত। অবশ্য সিএবি-কেও ছাপিয়ে গিয়েছে বোর্ড। মেয়েদের এক দিনের ক্রিকেটে বিশ্বের সর্বোচ্চ উইকেটসংগ্রাহক এবং সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক দু’জনেই ভারতের। আর সেই কীর্তির জন্য বোর্ড দু’জনের হাতেই তুলে দিয়েছে উপেক্ষার ফলক!