‘আফ্রিদির এক থাপ্পড়ে অপরাধ স্বীকার করেছিল আমির’
চলতি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণের অন্যতম ভরসা আমির।
Amir

বিশ্বকাপে আমির আগুনে বোলিং করছেন। ছবি: এএফপি।

শাহিদ আফ্রিদির একটা থাপ্পড় খেয়ে নিজের অপরাধ স্বীকার করেছিলেন পাকিস্তানের তারকা পেসার মহম্মদ আমির। প্রাক্তন ক্রিকেটার আব্দুল রজ্জাক সেই ঘটনার সাক্ষী ছিলেন। প্রায় ন’ বছর আগের কলঙ্কিত এক অধ্যায়ে আলো ফেলেছেন রজ্জাক।

আমির অবশ্য চলতি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণের অন্যতম ভরসা। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজে হতশ্রী পারফরম্যান্সের পরেই পাক নির্বাচকরা আমিরকে বিশ্বকাপের দলে ফেরানোর কথা ভাবনাচিন্তা করেন। আমির নিজের সেরাটাই দেওয়ার চেষ্টা করছেন ইংল্যান্ডের মাটিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে। এই ইংল্যান্ডের মাটিতেই ন’ বছর আগে স্পট ফিক্সিং কাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছিলেন আমির।

২০১০ সালে ইংল্যান্ড সফরে গিয়েছিল পাকিস্তান। লর্ডসে অনুষ্ঠিত চতুর্থ ও শেষ টেস্টে ইচ্ছা করে নো বল করেন মহম্মদ আসিফ ও আমির। পাকিস্তানের টেস্ট দলের অধিনায়ক তখন সলমান বাট। তিনিও এই ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছিলেন। স্পট ফিক্সিং কাণ্ডে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল তিন পাক ক্রিকেটারকে। ২০১১ সালে ইংল্যান্ডের আদালতে নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেন আমির। তার আগে তৎকালীন অধিনায়ক আফ্রিদি আলাদা করে কথা বলেছিলেন আমিরের সঙ্গে। সে খানে উপস্থিত ছিলেন রজ্জাকও।

আরও পড়ুন:বিশ্বকাপ জিতবে ভারত? রেকর্ড কিন্তু তেমনই বলছে​

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের আশা শেষ? বাঁ হাতি ওপেনারের টুইটে আশার আলো

কী ঘটেছিল সে দিন? একটি নিউজ চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রজ্জাক বলেন, ‘‘আফ্রিদি আমাকে ঘরের বাইরে যেতে বলেছিল। আমি বেরিয়ে গিয়েছিলাম ঘর থেকে। কিছু ক্ষণ পরেই একটা জোরালো থাপ্পড়ের শব্দ শুনতে পাই। এর পরেই আমির পুরো সত্যিটা জানায়।’’

পাঁচ বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ক্রিকেটে ফিরেছেন তিন পাক ক্রিকেটারই। আমিরই শুধু দেশের হয়ে খেলার জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। ভরা বিশ্বকাপের মধ্যে ন’ বছর আগের সেই ঘটনা হঠাৎ করে কেন তুললেন রজ্জাক, তা অবশ্য পরিষ্কার নয়।

ম্যাচের
Live
স্কোর

আপনার মত