কলকাতা লিগের খেতাব হারানোর পরদিনই কামো স্টিফেন বায়ি-কে ছেঁটে ফেলা হল মোহনবাগান টিম থেকে। সঙ্গে আরও নয় ফুটবলার।

কামো ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে কথা চালাচ্ছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে ময়দানে। রবিবার শিলিগুড়ি ডার্বিতে সহজতম সুযোগ নষ্ট করেছিলেন আইভরি কোস্টের এই স্ট্রাইকার। যা নিয়ে গঙ্গাপাড়ের ক্লাবে চলছে সমালোচনার ঝড়। ইস্টবেঙ্গল কোচ খালিদ জামিল অবশ্য বলে দিয়েছেন, ছয নম্বর বিদেশি নেবেন একজন ডিফেন্সিভ ব্লকার বা গোলকিপার। সোমবার অবশ্য কামোকে দেখা গেল সতীর্থদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে দমদম বিমানবন্দর থেকে বিদায় নিতে।

ছুটির পর দোসরা অক্টোবর থেকে ফের অনুশীলন শুরু হচ্ছে আনসুমানা ক্রোমাদের। গভর্নস গোল্ড কাপ খেলতে ৮ অক্টোবর সিকিম যাবে শঙ্করলাল চক্রবর্তীর টিম। আই লিগের প্রস্তুতি হিসাবে ওই টুর্নামেন্টকে দেখছে সবুজ-মেরুন শিবির। সে জন্যই ঝাড়াই বাছাই হচ্ছে টিমে। মহমেডান থেকে দিপান্দা ডিকা, রানা ঘরামি, শঙ্কর রায়, সেখ ফৈয়জরা যোগ দিচ্ছেন অনুশীলনে। সনি নর্দে এখন না এলেও বাকি দুই এশীয় কোটার অস্ট্রেলীয় ও জাপানি ফুটবলারও এসে পড়ছেন পুজোর পরই।

আরও পড়ুন: আটে আট করে লক্ষ্য আই লিগ

আই লিগের কোচ সঞ্জয় সেন অসুস্থ। ক্লাব সূত্রের খবর এখনও তাঁর কোচিংয়ে ফিরতে মাস খানেক লাগবে।  ফলে শঙ্করলাল চক্রবর্তীকেই হয়তো সিকিমের পর দেখা যাবে আই লিগের শুরুতেও। গোল পার্থক্যে খেতাব হাতছাড়া হলেও শঙ্করলাল অবশ্য বললেন, ‘‘কলকাতা লিগ থেকে শিল্টন ডি’সিলভার মতো বেশ কয়েকজন নতুন ফুটবলারকে পেয়ে গেলাম। টিমটা টানা ন’টা ম্যাচ হারেনি। ডার্বিটাও দারুণ খেলেছে। এ বার আই লিগটার জন্য তৈরি হতে হবে।’’ শঙ্করলাল এ দিন অবশ্য রবিবারের পেনাল্টি নিয়ে কিছু বলেননি। তবে তাঁর টিমের সব ফুটবলারের মোবাইলেই ক্লিপিংস চলে এসেছে। ‘‘সবাই তো বলছে ওটা পেনাল্টি ছিল না।’’ বলে দিলেন হতাশ কোচ।